গঙ্গাচড়ায় খুনের মামলার আসামি গ্রেফতারের পর হৃদরোগে মৃত্যু
jugantor
গঙ্গাচড়ায় খুনের মামলার আসামি গ্রেফতারের পর হৃদরোগে মৃত্যু

  রংপুর ব্যুরো  

০১ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় জোড়া খুন মামলার এক আসামিকে গ্রেফতারের পর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকারসহ মৃতের স্বজনরা জানান, গ্রেফতার এজাহারুল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। আগে থেকেই ওই আসামি নানান রোগে ভুগছিল।

গঙ্গাচড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক কিবরিয়া জানান, বাঁশ কাটা নিয়ে বিরোধের জেরে ২০০৩ সালে এজাহারুল তার আপন দুই ভাইকে দিন-দুপুরে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় এজাহারুলের আরেক ভাই জালানুর গঙ্গাচড়া মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। ২০ সেপ্টেম্বর এজাহারুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত।

পুলিশ মঙ্গলবার রাতে এজাহারুলকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসার সময় পথে তার বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এ সময় পুলিশ চিকিৎসার জন্য তাকে গঙ্গাচড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এজাহারুলের শ্বশুর মোবারক আলী জানান, তার জামাই আগে থেকে হৃদরোগে ভুগছিল। তার মেরুদণ্ডে অপারেশন করা হয়েছিল।

গঙ্গাচড়ায় খুনের মামলার আসামি গ্রেফতারের পর হৃদরোগে মৃত্যু

 রংপুর ব্যুরো 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় জোড়া খুন মামলার এক আসামিকে গ্রেফতারের পর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকারসহ মৃতের স্বজনরা জানান, গ্রেফতার এজাহারুল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। আগে থেকেই ওই আসামি নানান রোগে ভুগছিল।

গঙ্গাচড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক কিবরিয়া জানান, বাঁশ কাটা নিয়ে বিরোধের জেরে ২০০৩ সালে এজাহারুল তার আপন দুই ভাইকে দিন-দুপুরে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় এজাহারুলের আরেক ভাই জালানুর গঙ্গাচড়া মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। ২০ সেপ্টেম্বর এজাহারুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত।

পুলিশ মঙ্গলবার রাতে এজাহারুলকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসার সময় পথে তার বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এ সময় পুলিশ চিকিৎসার জন্য তাকে গঙ্গাচড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এজাহারুলের শ্বশুর মোবারক আলী জানান, তার জামাই আগে থেকে হৃদরোগে ভুগছিল। তার মেরুদণ্ডে অপারেশন করা হয়েছিল।