বরুড়ায় ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী তরুণী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা
jugantor
মামলার চার দিনেও গ্রেফতার হয়নি ধর্ষক
বরুড়ায় ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী তরুণী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা

  কুমিল্লা ব্যুরো  

০৩ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার বরুড়ায় প্রতিবন্ধী বৌদ্ধ তরুণীকে (১৭) ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হওয়ার চার দিন পার হলেও ধর্ষক গ্রেফতার হয়নি।

তবে পুলিশ জানিয়েছে, ধর্ষক ইমান হোসেনকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এদিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তরুণী এখন আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা দক্ষিণ শীলমুড়ি ইউনিয়নের লগ্নসার গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে ইমাম হোসেন একই গ্রামের হতদরিদ্র মা হারা ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। সর্বশেষ গত শনিবার রাতে ইমাম হোসেন ফের তরুণীর বাড়িতে ঢুকে একই কাজে লিপ্ত হয়। তরুণীর বৃদ্ধ বাবা বিষয়টি টের পেয়ে ইমামকে ধরার চেষ্টা করে। কিন্তু কৌশলে সে পালিয়ে যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকার প্রভাবশালী মহল ধর্ষককে বাঁচাতে তৎপর হয়ে ওঠে।

তরুণীর বাবা জানান, ঘটনা ধামাচাপা দিতে এলাকার কয়েকজন মাতুব্বর তার বাড়িতে আসেন। এরপর মিটমাটের জন্য সালিশ বসান। এ সময় তারা ৪০ হাজার টাকা দেয়ার কথা বলে ভয় দেখিয়ে তার কাছ থেকে খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন। যদিও কোনো টাকা দেয়নি। শুনেছি তারা ধর্ষক ইমাম হোসেনের কাছ থেকে মীমাংসার নামে ২ লাখ টাকা নিয়েছে। পরে পুলিশের সহযোগিতায় সোমবার রাতে তিনি থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরুড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) উত্তম কুমার বলেন, ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ভিকটিম ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। পুলিশ আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

মামলার চার দিনেও গ্রেফতার হয়নি ধর্ষক

বরুড়ায় ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী তরুণী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা

 কুমিল্লা ব্যুরো 
০৩ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার বরুড়ায় প্রতিবন্ধী বৌদ্ধ তরুণীকে (১৭) ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হওয়ার চার দিন পার হলেও ধর্ষক গ্রেফতার হয়নি।

তবে পুলিশ জানিয়েছে, ধর্ষক ইমান হোসেনকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এদিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তরুণী এখন আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা দক্ষিণ শীলমুড়ি ইউনিয়নের লগ্নসার গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে ইমাম হোসেন একই গ্রামের হতদরিদ্র মা হারা ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। সর্বশেষ গত শনিবার রাতে ইমাম হোসেন ফের তরুণীর বাড়িতে ঢুকে একই কাজে লিপ্ত হয়। তরুণীর বৃদ্ধ বাবা বিষয়টি টের পেয়ে ইমামকে ধরার চেষ্টা করে। কিন্তু কৌশলে সে পালিয়ে যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকার প্রভাবশালী মহল ধর্ষককে বাঁচাতে তৎপর হয়ে ওঠে।

তরুণীর বাবা জানান, ঘটনা ধামাচাপা দিতে এলাকার কয়েকজন মাতুব্বর তার বাড়িতে আসেন। এরপর মিটমাটের জন্য সালিশ বসান। এ সময় তারা ৪০ হাজার টাকা দেয়ার কথা বলে ভয় দেখিয়ে তার কাছ থেকে খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন। যদিও কোনো টাকা দেয়নি। শুনেছি তারা ধর্ষক ইমাম হোসেনের কাছ থেকে মীমাংসার নামে ২ লাখ টাকা নিয়েছে। পরে পুলিশের সহযোগিতায় সোমবার রাতে তিনি থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরুড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) উত্তম কুমার বলেন, ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ভিকটিম ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। পুলিশ আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন