ভালুকায় গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন, মামলা
jugantor
যৌতুক দাবি
ভালুকায় গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন, মামলা

  ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১৫ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার রান্দিয়া গ্রামে যৌতুক না দেয়ায় মঙ্গলবার জান্নাত আক্তার নামে এক গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন করেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

আহত জান্নাত বর্তমানে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে জান্নাত বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে আসেন।

দুপুরের দিকে তার স্বামী জজ ঘরে ঢুকে যৌতুকের জন্য তাকে মারধর শুরু করে। এ সময় জান্নাতের ননস লাইলী বেগম, তার স্বামী হানিফ মিয়া, শ্বশুর মেহের আলী, দেবর আতা ও রাকিবও এতে যোগ দেয়। লাইলী বেগম হাতে থাকা রুটি বানানোর বেলুন দিয়ে জান্নাতের মুখে আঘাত করলে তার ডান পাটির একটি দাঁত ভেঙে পড়ে যায়।

স্বামী জজ কাঁটা কম্পাস দিয়ে তার জিভ ফুটো করে ফেলে। শ্বশুর মেহের আলী ব্লেড দিয়ে তার ডান পায়ের রগ কেটে ফেলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। জান্নাতকে এরকম বর্বর নির্যাতন করে বাড়িতে আটকে রাখা হয়।

সন্ধ্যায় গৃহবধূর পরিবারের লোকজন খোঁজ পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের সহযোগিতায় সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। থানার এসআই আবদুল লতিফ জানান, অভিযোগ পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে গেলে বাড়ির লোকজন কাউকেই পাইনি। আশপাশের লোকজনের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি।

যৌতুক দাবি

ভালুকায় গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন, মামলা

 ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার রান্দিয়া গ্রামে যৌতুক না দেয়ায় মঙ্গলবার জান্নাত আক্তার নামে এক গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন করেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

আহত জান্নাত বর্তমানে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে জান্নাত বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে আসেন।

দুপুরের দিকে তার স্বামী জজ ঘরে ঢুকে যৌতুকের জন্য তাকে মারধর শুরু করে। এ সময় জান্নাতের ননস লাইলী বেগম, তার স্বামী হানিফ মিয়া, শ্বশুর মেহের আলী, দেবর আতা ও রাকিবও এতে যোগ দেয়। লাইলী বেগম হাতে থাকা রুটি বানানোর বেলুন দিয়ে জান্নাতের মুখে আঘাত করলে তার ডান পাটির একটি দাঁত ভেঙে পড়ে যায়।

স্বামী জজ কাঁটা কম্পাস দিয়ে তার জিভ ফুটো করে ফেলে। শ্বশুর মেহের আলী ব্লেড দিয়ে তার ডান পায়ের রগ কেটে ফেলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। জান্নাতকে এরকম বর্বর নির্যাতন করে বাড়িতে আটকে রাখা হয়।

সন্ধ্যায় গৃহবধূর পরিবারের লোকজন খোঁজ পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের সহযোগিতায় সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। থানার এসআই আবদুল লতিফ জানান, অভিযোগ পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে গেলে বাড়ির লোকজন কাউকেই পাইনি। আশপাশের লোকজনের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন