পীরগাছায় ধর্ষণের এক যুগ পর ধর্ষকের যাবজ্জীবন
jugantor
পীরগাছায় ধর্ষণের এক যুগ পর ধর্ষকের যাবজ্জীবন

  রংপুর ব্যুরো  

২৮ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর পীরগাছা উপজেলায় কিশোরী গৃহকর্মী ধর্ষণ মামলায় এক যুগ পর গৃহকর্তা নয়া মিয়াকে (৪৭) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর বিচারক রোকনুজ্জামান এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় জামিনে থাকা আসামি নয়া মিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রংপুর পীরগাছা উপজেলার ফকিরান ফকিরা এলাকার দিনমজুর পরিবারের ওই কিশোরী পাশের প্রভাবশালী নয়া মিয়ার বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করত। ২০০৭ সালের ১৪ এপ্রিল কিশোরীকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করে নয়া মিয়া। মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে একই বছর ২১ অক্টোবর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পীরগাছা থানায় মামলা করে ধর্ষিতা কিশোরী। মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর পিপি জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন বলেন, জামিনে থাকা অবস্থায় আসামি কিছু দিন আদালতে হাজিরা দিয়েছিলেন। তবে রায় ঘোষণার দিন তিনি পলাতক ছিলেন। দেরিতে হলেও আসামির যাবজ্জীবন সাজা হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।

পীরগাছায় ধর্ষণের এক যুগ পর ধর্ষকের যাবজ্জীবন

 রংপুর ব্যুরো 
২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর পীরগাছা উপজেলায় কিশোরী গৃহকর্মী ধর্ষণ মামলায় এক যুগ পর গৃহকর্তা নয়া মিয়াকে (৪৭) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর বিচারক রোকনুজ্জামান এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় জামিনে থাকা আসামি নয়া মিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রংপুর পীরগাছা উপজেলার ফকিরান ফকিরা এলাকার দিনমজুর পরিবারের ওই কিশোরী পাশের প্রভাবশালী নয়া মিয়ার বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করত। ২০০৭ সালের ১৪ এপ্রিল কিশোরীকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করে নয়া মিয়া। মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে একই বছর ২১ অক্টোবর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পীরগাছা থানায় মামলা করে ধর্ষিতা কিশোরী। মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর পিপি জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন বলেন, জামিনে থাকা অবস্থায় আসামি কিছু দিন আদালতে হাজিরা দিয়েছিলেন। তবে রায় ঘোষণার দিন তিনি পলাতক ছিলেন। দেরিতে হলেও আসামির যাবজ্জীবন সাজা হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।