পাবনায় গুলিবর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে
jugantor
পাবনায় গুলিবর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

  পাবনা প্রতিনিধি  

২৮ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতিপক্ষের ওপর প্রকাশ্যে গুলিবর্ষণ মামলায় পাবনার সুজানগর উপজেলার সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে পাবনার আমলি আদালত-৬ এর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিলন হোসেন এ আদেশ দেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার বাদী হাশমত খলিফা বলেন, ২০১৮ সালের ২৮ নভেম্বর পূর্বশত্রুতার জের ধরে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী দলবল নিয়ে তার ওপর হামলা চালান। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের নির্দেশে তার ভাতিজা রবিন চৌধুরী তাকে হত্যার উদ্দেশে প্রকাশ্যে গুলি চালান। গুলিটি তার পায়ে লাগায় তিনি গুরুতর আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান। এ ঘটনায় তিনি আমিনপুর থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। পরে তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলাটি পিবিআইতে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) স্থানান্তর করা হয়।

পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফজলে এলাহী বলেন, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন মো. আসাদুজ্জামান। পিবিআই তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পায়। সে মোতাবেক আদালতে সম্প্রতি চার্জশিট দাখিল করা হয়।

এদিকে, মঙ্গলবার মামলার শুনানির দিন ধার্য ছিল। এতে মামলার ১৩ আসামি আদালতে হাজির হন। আদালত মামলার ১১ আসামিকে জামিন দেন আর সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পাবনায় গুলিবর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

 পাবনা প্রতিনিধি 
২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতিপক্ষের ওপর প্রকাশ্যে গুলিবর্ষণ মামলায় পাবনার সুজানগর উপজেলার সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে পাবনার আমলি আদালত-৬ এর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিলন হোসেন এ আদেশ দেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার বাদী হাশমত খলিফা বলেন, ২০১৮ সালের ২৮ নভেম্বর পূর্বশত্রুতার জের ধরে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী দলবল নিয়ে তার ওপর হামলা চালান। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের নির্দেশে তার ভাতিজা রবিন চৌধুরী তাকে হত্যার উদ্দেশে প্রকাশ্যে গুলি চালান। গুলিটি তার পায়ে লাগায় তিনি গুরুতর আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান। এ ঘটনায় তিনি আমিনপুর থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। পরে তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলাটি পিবিআইতে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) স্থানান্তর করা হয়।

পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফজলে এলাহী বলেন, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন মো. আসাদুজ্জামান। পিবিআই তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পায়। সে মোতাবেক আদালতে সম্প্রতি চার্জশিট দাখিল করা হয়।

এদিকে, মঙ্গলবার মামলার শুনানির দিন ধার্য ছিল। এতে মামলার ১৩ আসামি আদালতে হাজির হন। আদালত মামলার ১১ আসামিকে জামিন দেন আর সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।