মামলার সব আসামি খালাস
jugantor
দিপঙ্কর হত্যা
মামলার সব আসামি খালাস

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বাগমারায় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির (জামায়া’তুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ) হাতে নিহত দিপঙ্কর সাহা হত্যা মামলায় সব আসামি বেকসুর খালাস পেয়েছেন। বুধবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালত-১ এর বিচারক ইসমত আরা এ রায় ঘোষণা করেন। ১৬ বছর পর এ মামলার রায় ঘোষিত হল। মামলার মোট ১৮ আসামির মধ্যে জেএমবির নেতা সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলাভাইয়ের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে অন্য মামলায়। ৪ জনের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। মৃত এ ৫ জন এমনিতেই অব্যাহতি পেয়েছেন। বাকি ১৩ আসামি বেকসুর খালাস পেলেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী শফিকুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন পরিচালিত এ মামলার সাক্ষীরা আসামি শনাক্ত করতে না পারায় তাদের খালাস দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় ৩৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০০৪ সালে ২৯ এপ্রিল তৎকালীন জেএমবি নেতা বাংলা ভাইয়ের নেতৃত্বে তাদের হামিরকুৎসা ক্যাম্পে ধরে নিয়ে দিপঙ্কর সাহাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দিপঙ্করের বাবা দিজেন্দ্রনাথ সাহা বাগমারা থানায় হত্যা মামলা করেন।

দিপঙ্কর হত্যা

মামলার সব আসামি খালাস

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বাগমারায় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির (জামায়া’তুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ) হাতে নিহত দিপঙ্কর সাহা হত্যা মামলায় সব আসামি বেকসুর খালাস পেয়েছেন। বুধবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালত-১ এর বিচারক ইসমত আরা এ রায় ঘোষণা করেন। ১৬ বছর পর এ মামলার রায় ঘোষিত হল। মামলার মোট ১৮ আসামির মধ্যে জেএমবির নেতা সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলাভাইয়ের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে অন্য মামলায়। ৪ জনের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। মৃত এ ৫ জন এমনিতেই অব্যাহতি পেয়েছেন। বাকি ১৩ আসামি বেকসুর খালাস পেলেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী শফিকুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন পরিচালিত এ মামলার সাক্ষীরা আসামি শনাক্ত করতে না পারায় তাদের খালাস দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় ৩৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০০৪ সালে ২৯ এপ্রিল তৎকালীন জেএমবি নেতা বাংলা ভাইয়ের নেতৃত্বে তাদের হামিরকুৎসা ক্যাম্পে ধরে নিয়ে দিপঙ্কর সাহাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দিপঙ্করের বাবা দিজেন্দ্রনাথ সাহা বাগমারা থানায় হত্যা মামলা করেন।