কাস্টমসের নারী কর্মকর্তার ১৩ বছর জেল
jugantor
খুলনায় দুর্নীতির মামলা
কাস্টমসের নারী কর্মকর্তার ১৩ বছর জেল

  খুলনা ব্যুরো  

২৫ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দুদকের মামলায় চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সাময়িক বরখাস্ত কর্মকর্তা রাফেজা বেগম ওরফে নাজমা হায়দারকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১ কোটি ৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার খুলনার বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক জিয়া হায়দার রায় ঘোষণা করেন।

নাজমা হায়দার খুলনার সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকার ১ম ফেজের বাসিন্দা। তার স্বামী এসএম জাহাঙ্গীর আলমও চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে কর্মরত রয়েছেন। দণ্ডিত নাজমা হায়দার একজন জাতীয় অ্যাথলেট ছিলেন। খুলনায় দুদকের মামলায় এটাই সর্বোচ্চ শাস্তির রায় বলে জানান দুদক পিপি অ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, আয়বহির্ভূত ১ কোটি ৫ লাখ টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের উচ্চমান সহকারী নাজমা হায়দারের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। ২০১৫ সালের ৪ এপ্রিল খুলনার সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় দুদকের সহকারী পরিচালক মোশাররফ হোসেন মামলাটি করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারী পরিচালক এসএম শামীম ইকবাল নাজমা হায়দারকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি নাজমা হায়দার কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

খুলনায় দুর্নীতির মামলা

কাস্টমসের নারী কর্মকর্তার ১৩ বছর জেল

 খুলনা ব্যুরো 
২৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দুদকের মামলায় চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সাময়িক বরখাস্ত কর্মকর্তা রাফেজা বেগম ওরফে নাজমা হায়দারকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১ কোটি ৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার খুলনার বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক জিয়া হায়দার রায় ঘোষণা করেন।

নাজমা হায়দার খুলনার সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকার ১ম ফেজের বাসিন্দা। তার স্বামী এসএম জাহাঙ্গীর আলমও চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে কর্মরত রয়েছেন। দণ্ডিত নাজমা হায়দার একজন জাতীয় অ্যাথলেট ছিলেন। খুলনায় দুদকের মামলায় এটাই সর্বোচ্চ শাস্তির রায় বলে জানান দুদক পিপি অ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, আয়বহির্ভূত ১ কোটি ৫ লাখ টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের উচ্চমান সহকারী নাজমা হায়দারের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। ২০১৫ সালের ৪ এপ্রিল খুলনার সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় দুদকের সহকারী পরিচালক মোশাররফ হোসেন মামলাটি করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারী পরিচালক এসএম শামীম ইকবাল নাজমা হায়দারকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি নাজমা হায়দার কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।