সরকার নির্ধারিত মূল্যে চাল সরবরাহ করবে না মিলাররা
jugantor
সরকার নির্ধারিত মূল্যে চাল সরবরাহ করবে না মিলাররা

  বগুড়া ব্যুরো  

২৬ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সরকার নির্ধারিত ৩৭ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহ করবে না মিল মালিকরা। ধানের সঙ্গে চালের বাজার মূল্য সমন্বয় করার দাবি জানিয়েছেন তারা। বুধবার বগুড়ায় বাংলাদেশ অটো মেজর অ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির সভায় এ দাবি জানানো হয়। দুপুরে শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আবদুর রশিদ। কুষ্টিয়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীনের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কেএম লায়েক আলী, কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ও দিনাজপুরের মালিক মোহন পাটোয়ারী, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার এরফান আলী, সংগঠনের উপদেষ্টা ও নেত্রকোনার মালিক এইচআর খান পাঠান সাকী, নওগাঁ জেলা চালকল মালিক গ্রুপের রফিকুল ইসলাম, গাইবান্ধা জেলার সভাপতি নাজির হোসেন প্রধান, বগুড়ার সভাপতি এটিএম আমিনুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক দুদু, দিনাজপুরের প্রতাপ সাহা পানু, রংপুরের সামছুল ইসলাম বাবুসহ উত্তরের বিভিন্ন জেলার চালকল মালিকরা।

সভায় বক্তারা বলেন, চাল শিল্পকে রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। বাজারে ধানের মূল্যের সঙ্গে চালের মূল্য সামঞ্জস্য করতে হবে। ধানের বাজার ভালো, এবার কৃষক ভালো দাম পেয়েছে। কিন্তু সরকার নির্ধারিত ৩৭ টাকা মূল্যে চাল তারা সরবরাহ করতে পারবে না। সরকারকে সহযোগিতার জন্য প্রয়োজনে লাভ না হলেও বর্তমান বাজার অনুযায়ী চালের দাম দেয়ার আহ্বান জানান বক্তারা। তারা আরও বলেন, বিগত ইরি মৌসুমে মিল মালিকরা লোকসান দিয়ে চাল সরবরাহ করেছেন। করোনাকালে চালকল মালিকরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাই এবার আর কোনোভাবেই ভর্তুকি বা লোকসান দিয়ে চাল সরবরাহ সম্ভব নয়। পাশাপাশি তার চুক্তির সময় বর্ধিত করারও দাবি জানান।

সরকার নির্ধারিত মূল্যে চাল সরবরাহ করবে না মিলাররা

 বগুড়া ব্যুরো 
২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সরকার নির্ধারিত ৩৭ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহ করবে না মিল মালিকরা। ধানের সঙ্গে চালের বাজার মূল্য সমন্বয় করার দাবি জানিয়েছেন তারা। বুধবার বগুড়ায় বাংলাদেশ অটো মেজর অ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির সভায় এ দাবি জানানো হয়। দুপুরে শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আবদুর রশিদ। কুষ্টিয়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীনের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কেএম লায়েক আলী, কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ও দিনাজপুরের মালিক মোহন পাটোয়ারী, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার এরফান আলী, সংগঠনের উপদেষ্টা ও নেত্রকোনার মালিক এইচআর খান পাঠান সাকী, নওগাঁ জেলা চালকল মালিক গ্রুপের রফিকুল ইসলাম, গাইবান্ধা জেলার সভাপতি নাজির হোসেন প্রধান, বগুড়ার সভাপতি এটিএম আমিনুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক দুদু, দিনাজপুরের প্রতাপ সাহা পানু, রংপুরের সামছুল ইসলাম বাবুসহ উত্তরের বিভিন্ন জেলার চালকল মালিকরা।

সভায় বক্তারা বলেন, চাল শিল্পকে রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। বাজারে ধানের মূল্যের সঙ্গে চালের মূল্য সামঞ্জস্য করতে হবে। ধানের বাজার ভালো, এবার কৃষক ভালো দাম পেয়েছে। কিন্তু সরকার নির্ধারিত ৩৭ টাকা মূল্যে চাল তারা সরবরাহ করতে পারবে না। সরকারকে সহযোগিতার জন্য প্রয়োজনে লাভ না হলেও বর্তমান বাজার অনুযায়ী চালের দাম দেয়ার আহ্বান জানান বক্তারা। তারা আরও বলেন, বিগত ইরি মৌসুমে মিল মালিকরা লোকসান দিয়ে চাল সরবরাহ করেছেন। করোনাকালে চালকল মালিকরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাই এবার আর কোনোভাবেই ভর্তুকি বা লোকসান দিয়ে চাল সরবরাহ সম্ভব নয়। পাশাপাশি তার চুক্তির সময় বর্ধিত করারও দাবি জানান।