বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়ার নিন্দা মতিয়া চৌধুরীর
jugantor
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়ার নিন্দা মতিয়া চৌধুরীর

  শেরপুর প্রতিনিধি  

২৬ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়া দেয়া ব্যক্তিদের কঠোর নিন্দা করে সাবেক কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান লন্ডনে বসে ক্যাসিনো চালায় অর্থাৎ জুয়া ও মদের ব্যবসা করে, তখন তাদের চোখে ইসলামের খেলাপ হয় না। যারা আজকে এত ফতোয়া দিচ্ছেন তারা কোনোদিন খালেদা জিয়ার চুল ফোলানো, ফিনফিনে শাড়ি নিয়ে একটি কথাও বলেননি। আর এখন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে তাদের গা জ্বালা শুরু হয়েছে।

বুধবার শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার বাগবেড় ইউনিয়নের সন্নাসীভিটা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মেধাবী শিশুদের হাতে সৌরবাতি ও মসজিদের ইমাম মুয়াজ্জিনদের টিন ও নগদ অর্থ বিতরণকালে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, ইরানের সিরাজ শহরে গালিবের ও তেহরানে নাদির শাহের ভাস্কর্য আছে। ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্কেও ভাস্কর্য আছে। বীরদের ভাস্কর্য তারা স্থাপন করেছে। এসব ভাস্কর্য সম্পর্কে এরা কিছু বলে না।

এক সময় ছবি তোলার বিরুদ্ধেও তারা ফতোয়া দিয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে যেতে হলে পাসপোর্ট করতে হবে। আর পাসপোর্ট করতে হলে ছবি তুলতে হবে। সেসময় তারা ছবি তোলার বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছিল। বেগম রোকেয়া ও নারী শিক্ষার বিরুদ্ধে ফতোয়া দেয়া হয়েছে। আজকে নারী শিক্ষার বিরুদ্ধে কথা বললে কেউ মানবে না। কাজেই এসব কথা বলে ভালো কাজ ঠেকানো যাবে না।

গোমরা কথার কোনো উত্তর নেই উল্লেখ করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, এখন মহাশূন্যে বিদ–্যতের সাব-স্টেশন হচ্ছে। তারা সম্ভবত এর বিরুদ্ধেও কথা বলবে। এরা কচ্ছপের মতো। সুযোগ পেলেই গলা বাড়ায়।

এদিন মতিয়া চৌধুরী উপজেলার পৌরসভাসহ ১২টি ইউনিয়নে নিজ তহবিল থেকে পল্লী চিকিৎসক, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, জেলে, নরসুন্দর, আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বাসিন্দাসহ সাড়ে পাঁচ হাজার মানুষকে সৌরবাতি বিতরণ করেন। এছাড়া মসজিদ, মন্দির ও গির্জায় ২৭৫ বান্ডেল ঢেউটিন ও প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকে নগদ ৩ হাজার করে টাকা দেন। এ সময় শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, নালিতাবাড়ীর ইউএনও ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়ার নিন্দা মতিয়া চৌধুরীর

 শেরপুর প্রতিনিধি 
২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়া দেয়া ব্যক্তিদের কঠোর নিন্দা করে সাবেক কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান লন্ডনে বসে ক্যাসিনো চালায় অর্থাৎ জুয়া ও মদের ব্যবসা করে, তখন তাদের চোখে ইসলামের খেলাপ হয় না। যারা আজকে এত ফতোয়া দিচ্ছেন তারা কোনোদিন খালেদা জিয়ার চুল ফোলানো, ফিনফিনে শাড়ি নিয়ে একটি কথাও বলেননি। আর এখন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে তাদের গা জ্বালা শুরু হয়েছে।

বুধবার শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার বাগবেড় ইউনিয়নের সন্নাসীভিটা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মেধাবী শিশুদের হাতে সৌরবাতি ও মসজিদের ইমাম মুয়াজ্জিনদের টিন ও নগদ অর্থ বিতরণকালে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, ইরানের সিরাজ শহরে গালিবের ও তেহরানে নাদির শাহের ভাস্কর্য আছে। ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্কেও ভাস্কর্য আছে। বীরদের ভাস্কর্য তারা স্থাপন করেছে। এসব ভাস্কর্য সম্পর্কে এরা কিছু বলে না।

এক সময় ছবি তোলার বিরুদ্ধেও তারা ফতোয়া দিয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে যেতে হলে পাসপোর্ট করতে হবে। আর পাসপোর্ট করতে হলে ছবি তুলতে হবে। সেসময় তারা ছবি তোলার বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছিল। বেগম রোকেয়া ও নারী শিক্ষার বিরুদ্ধে ফতোয়া দেয়া হয়েছে। আজকে নারী শিক্ষার বিরুদ্ধে কথা বললে কেউ মানবে না। কাজেই এসব কথা বলে ভালো কাজ ঠেকানো যাবে না।

গোমরা কথার কোনো উত্তর নেই উল্লেখ করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, এখন মহাশূন্যে বিদ–্যতের সাব-স্টেশন হচ্ছে। তারা সম্ভবত এর বিরুদ্ধেও কথা বলবে। এরা কচ্ছপের মতো। সুযোগ পেলেই গলা বাড়ায়।

এদিন মতিয়া চৌধুরী উপজেলার পৌরসভাসহ ১২টি ইউনিয়নে নিজ তহবিল থেকে পল্লী চিকিৎসক, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, জেলে, নরসুন্দর, আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বাসিন্দাসহ সাড়ে পাঁচ হাজার মানুষকে সৌরবাতি বিতরণ করেন। এছাড়া মসজিদ, মন্দির ও গির্জায় ২৭৫ বান্ডেল ঢেউটিন ও প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকে নগদ ৩ হাজার করে টাকা দেন। এ সময় শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, নালিতাবাড়ীর ইউএনও ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।