চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি
jugantor
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

  চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

২৮ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে সৌদিয়া পরিবহনের বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। এ সময় ডাকাতের গুলি ও মারধরে দু’জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১৫ যাত্রী আহত হয়েছেন।

গুলিবিদ্ধ দু’জনকে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পেটে গুলিবিদ্ধ একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে। ডাকাতরা যাত্রীবেশে চট্টগ্রাম থেকে বাসে উঠেছিল।

যাত্রীরা জানান, সংঘবদ্ধ সশস্ত্র ডাকাত দল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বাসযাত্রীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, অন্তত ২০টি মোবাইল ও স্বর্ণালঙ্কার লুটে নেয়। বাসে ডাকাত ছাড়া ৩৭ জন যাত্রী ছিলেন। গুলিবিদ্ধ দু’জন হচ্ছেন- টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের পানছড়ি গ্রামের এজাহার আহমদের ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন (২৭)। তার পেটে গুলি লেগেছে। গুলিবিদ্ধ অপর জনের নাম রাকিব উদ্দিন (৩০)। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লাহর মনু খানের ছেলে বিল্লাল হোসেন জনি (২৬) চকরিয়া থানায় মামলা করেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চকরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরেখোদা সিদ্দিকী জানান, কী পরিমাণ টাকা, মোবাইল, অলঙ্কার খোয়া গেছে তা বিস্তারিত তদন্তের পর জানা যাবে।’ এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশরাফ হোসেন জানান, ঘটনার বিস্তারিত জানার জন্য বাসের তিন জন স্টাফকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জব্দ করা হয়েছে ডাকাতির শিকার বাসটিও।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

 চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
২৮ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে সৌদিয়া পরিবহনের বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। এ সময় ডাকাতের গুলি ও মারধরে দু’জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১৫ যাত্রী আহত হয়েছেন।

গুলিবিদ্ধ দু’জনকে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পেটে গুলিবিদ্ধ একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে। ডাকাতরা যাত্রীবেশে চট্টগ্রাম থেকে বাসে উঠেছিল।

যাত্রীরা জানান, সংঘবদ্ধ সশস্ত্র ডাকাত দল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বাসযাত্রীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, অন্তত ২০টি মোবাইল ও স্বর্ণালঙ্কার লুটে নেয়। বাসে ডাকাত ছাড়া ৩৭ জন যাত্রী ছিলেন। গুলিবিদ্ধ দু’জন হচ্ছেন- টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের পানছড়ি গ্রামের এজাহার আহমদের ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন (২৭)। তার পেটে গুলি লেগেছে। গুলিবিদ্ধ অপর জনের নাম রাকিব উদ্দিন (৩০)। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লাহর মনু খানের ছেলে বিল্লাল হোসেন জনি (২৬) চকরিয়া থানায় মামলা করেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চকরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরেখোদা সিদ্দিকী জানান, কী পরিমাণ টাকা, মোবাইল, অলঙ্কার খোয়া গেছে তা বিস্তারিত তদন্তের পর জানা যাবে।’ এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশরাফ হোসেন জানান, ঘটনার বিস্তারিত জানার জন্য বাসের তিন জন স্টাফকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জব্দ করা হয়েছে ডাকাতির শিকার বাসটিও।