চট্টগ্রামে এএসআই মোস্তফাকে খুঁজছে পুলিশ
jugantor
কনস্টেবল দিয়ে ইয়াবা বিক্রি
চট্টগ্রামে এএসআই মোস্তফাকে খুঁজছে পুলিশ

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত এক পুলিশ সদস্যকে খুঁজছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। এএসআই পদমর্যাদার ওই পুলিশ সদস্যের নাম মো. মোস্তফা। সম্প্রতি ইয়াবাসহ গ্রেফতার এক পুলিশ কনস্টেবলের আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে এএসআই মোস্তফার নাম প্রকাশ হয়েছে।

র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ওই কনস্টেবল মো. মোশারফ হোসেন রাঙ্গুনিয়া থানায় কর্মরত। তিনি ফেনী জেলার সোনাগাজী থানার নবাবপুর রঘুনাথপুর এলাকার জাফর আহম্মদের ছেলে। তার পরিবার চট্টগ্রাম শহরের ২ নম্বর গেট এলাকায় থাকে। ঘটনার সময় তিনি রাঙ্গুনিয়া থানায় অন ডিউটিতে ছিলেন। ইয়াবা বিক্রির জন্য চট্টগ্রাম শহরে এলেও মোশারফ থানাকে অবহিত কিংবা জিডি করেননি। রাঙ্গুনিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব মিল্কী যুগান্তরকে জানান, র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতারের সময় মোশারফ রাঙ্গুনিয়া থানায় কনস্টেবল হিসেবি কর্মরত ছিলেন। তবে তিনি কোনো ছুটিতে ছিলেন না। চট্টগ্রাম শহরে যাওয়ার বিষয়ে থানাকেও ইনফর্ম করেননি। তার বিষয়ে এভাবেই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

২১ অক্টোবর সন্ধ্যায় চকবাজার থানার ওয়াসা মোড় এলাকায় হক লাইব্রেরির সামনে থেকে মো. মোশারফ হোসেনকে ২ হাজার ৮৭৫ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে র‌্যাব। তাকে আসামি করে চকবাজার থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন র‌্যাব-৭ এর পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যান) অমল চন্দ। জবানবন্দিতে মোশারফ হোসেন স্বীকার করেন, মোস্তফা নামে এক এএসআই তাকে প্যাকেটগুলো দিয়েছিলেন। কিন্তু ওই প্যাকেটে কী রয়েছে তা তিনি জানতেন না। মামলাটির তদন্ত করছেন নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক হাসান ইমাম। তিনি যুগান্তরকে বলেন, তদন্তের মাধ্যমে জবানবন্দিতে উল্লেখ করা ব্যক্তিকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। আরও কেউ জড়িত থাকলে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

কনস্টেবল দিয়ে ইয়াবা বিক্রি

চট্টগ্রামে এএসআই মোস্তফাকে খুঁজছে পুলিশ

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত এক পুলিশ সদস্যকে খুঁজছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। এএসআই পদমর্যাদার ওই পুলিশ সদস্যের নাম মো. মোস্তফা। সম্প্রতি ইয়াবাসহ গ্রেফতার এক পুলিশ কনস্টেবলের আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে এএসআই মোস্তফার নাম প্রকাশ হয়েছে।

র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ওই কনস্টেবল মো. মোশারফ হোসেন রাঙ্গুনিয়া থানায় কর্মরত। তিনি ফেনী জেলার সোনাগাজী থানার নবাবপুর রঘুনাথপুর এলাকার জাফর আহম্মদের ছেলে। তার পরিবার চট্টগ্রাম শহরের ২ নম্বর গেট এলাকায় থাকে। ঘটনার সময় তিনি রাঙ্গুনিয়া থানায় অন ডিউটিতে ছিলেন। ইয়াবা বিক্রির জন্য চট্টগ্রাম শহরে এলেও মোশারফ থানাকে অবহিত কিংবা জিডি করেননি। রাঙ্গুনিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব মিল্কী যুগান্তরকে জানান, র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতারের সময় মোশারফ রাঙ্গুনিয়া থানায় কনস্টেবল হিসেবি কর্মরত ছিলেন। তবে তিনি কোনো ছুটিতে ছিলেন না। চট্টগ্রাম শহরে যাওয়ার বিষয়ে থানাকেও ইনফর্ম করেননি। তার বিষয়ে এভাবেই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

২১ অক্টোবর সন্ধ্যায় চকবাজার থানার ওয়াসা মোড় এলাকায় হক লাইব্রেরির সামনে থেকে মো. মোশারফ হোসেনকে ২ হাজার ৮৭৫ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে র‌্যাব। তাকে আসামি করে চকবাজার থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন র‌্যাব-৭ এর পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যান) অমল চন্দ। জবানবন্দিতে মোশারফ হোসেন স্বীকার করেন, মোস্তফা নামে এক এএসআই তাকে প্যাকেটগুলো দিয়েছিলেন। কিন্তু ওই প্যাকেটে কী রয়েছে তা তিনি জানতেন না। মামলাটির তদন্ত করছেন নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক হাসান ইমাম। তিনি যুগান্তরকে বলেন, তদন্তের মাধ্যমে জবানবন্দিতে উল্লেখ করা ব্যক্তিকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। আরও কেউ জড়িত থাকলে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।