নাইক্ষ্যংছড়ি ও বাঘাইছড়িতে অস্ত্রসহ আটক ৫
jugantor
নাইক্ষ্যংছড়ি ও বাঘাইছড়িতে অস্ত্রসহ আটক ৫

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির উপজেলা সভাপতি ও রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে ইউপিডিএফের চার সদস্যকে আটক করেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। তাদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বান্দরবান : নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা বাইশারী ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে রোববার সকালে অস্ত্রসহ উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি শাহ সিরাজুর রহমান সজলকে আটক করে বিজিবি। এ সময় তার বাড়ি তল্লাশি করে তিনটি একনলা বন্দুক ও একটি এলজি রাইফেল উদ্ধার করা হয়। নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল শাহ আবদুল আজিজ আহমেদ বলেন, তার বিরুদ্ধে বিজিবির অপারেশন দলের নেতৃত্বদানকারী সুবেদার তাহাজ্জেল হোসেন মামলা করবেন। সজলের পরিবারের দাবি, রাবার বাগানের জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সজলকে ফাঁসানো হয়েছে। ২৭৯নং বাঁকখালী মৌজায় কিছু পাহাড়ি ভূমি নিয়ে সজলের সঙ্গে বিরোধ চলছিল।

রাঙ্গামাটি : বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেকে অস্ত্রসহ ইউপিডিএফের (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) চার সদস্যকে আটক করেছেন নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা। শনিবার সন্ধ্যার দিকে সাজেকের মেলাছড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটকরা হলেন- বিনয় চাকমা, বিজয় চাকমা ওরফে স্মৃতি, বিকাশ চাকমা ওরফে বাইট্ট্যা ও অনিল চন্দ্র চাকমা। তাদের কাছ থেকে দুটি দেশীয় তৈরি এলজি, পাঁচ রাউন্ড গুলি, তিনটি চাঁদার রশিদ বই, চারটি মোবাইল ফোন, দুটি ব্যানারসহ ইউপিডিএফের কেন্দ্রীয় বার্তা উদ্ধার করা হয়। রোববার সাজেক থানার উপপরিদর্শক নঈমুল জানান, আইনি ব্যবস্থার পর অস্ত্রসহ আটকদের আদালতে চালান দেয়া হবে। সাজেকে আটক চারজনকে নিরীহ গ্রামবাসী উল্লেখ করে তাদের মুক্তির দাবি করেছে ইউপিডিএফ। রোববার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে আটকদের মুক্তির দাবি করেন সংগঠনটির রাঙ্গামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা।

নাইক্ষ্যংছড়ি ও বাঘাইছড়িতে অস্ত্রসহ আটক ৫

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির উপজেলা সভাপতি ও রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে ইউপিডিএফের চার সদস্যকে আটক করেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। তাদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বান্দরবান : নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা বাইশারী ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে রোববার সকালে অস্ত্রসহ উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি শাহ সিরাজুর রহমান সজলকে আটক করে বিজিবি। এ সময় তার বাড়ি তল্লাশি করে তিনটি একনলা বন্দুক ও একটি এলজি রাইফেল উদ্ধার করা হয়। নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল শাহ আবদুল আজিজ আহমেদ বলেন, তার বিরুদ্ধে বিজিবির অপারেশন দলের নেতৃত্বদানকারী সুবেদার তাহাজ্জেল হোসেন মামলা করবেন। সজলের পরিবারের দাবি, রাবার বাগানের জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সজলকে ফাঁসানো হয়েছে। ২৭৯নং বাঁকখালী মৌজায় কিছু পাহাড়ি ভূমি নিয়ে সজলের সঙ্গে বিরোধ চলছিল।

রাঙ্গামাটি : বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেকে অস্ত্রসহ ইউপিডিএফের (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) চার সদস্যকে আটক করেছেন নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা। শনিবার সন্ধ্যার দিকে সাজেকের মেলাছড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটকরা হলেন- বিনয় চাকমা, বিজয় চাকমা ওরফে স্মৃতি, বিকাশ চাকমা ওরফে বাইট্ট্যা ও অনিল চন্দ্র চাকমা। তাদের কাছ থেকে দুটি দেশীয় তৈরি এলজি, পাঁচ রাউন্ড গুলি, তিনটি চাঁদার রশিদ বই, চারটি মোবাইল ফোন, দুটি ব্যানারসহ ইউপিডিএফের কেন্দ্রীয় বার্তা উদ্ধার করা হয়। রোববার সাজেক থানার উপপরিদর্শক নঈমুল জানান, আইনি ব্যবস্থার পর অস্ত্রসহ আটকদের আদালতে চালান দেয়া হবে। সাজেকে আটক চারজনকে নিরীহ গ্রামবাসী উল্লেখ করে তাদের মুক্তির দাবি করেছে ইউপিডিএফ। রোববার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে আটকদের মুক্তির দাবি করেন সংগঠনটির রাঙ্গামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন