ভোলায় পাকা ঘর পাচ্ছে ৫২০ দরিদ্র পরিবার
jugantor
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার
ভোলায় পাকা ঘর পাচ্ছে ৫২০ দরিদ্র পরিবার

  অমিতাভ অপু, ভোলা  

১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দ্বীপজেলা ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার হিসাবে দুই শতাংশ জমি ও পাকা ভবন (ঘর) বরাদ্দ পেয়ে শোকরিয়া আদায় করছে ৫২০ দরিদ্র পরিবার। এ যেন উন্নত জীবনের প্রতিচ্ছবি। লাল-সবুজের চালা, দুই কক্ষের পাকা ঘর, প্রতি ঘরের সামনে বারান্দা, দুটি বেড রুম, কিচেন, টয়লেটসহ অ্যাটাচড বাথ। সামনে পাকা সড়ক, থাকছে বিদ্যুৎ সংযোগ ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা। আধুনিক ও উন্নত জীবনযাত্রার সব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দরিদ্র পরিবারকে এসব জমি ও ঘর উপহার দিচ্ছেন। ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এসব ঘর বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। একই সঙ্গে ঘর ও জমির দলিল বিতরণ করা হবে ওইদিন। ইতোমধ্যে লটারির মাধ্যমে ঘর বরাদ্দের কাজও সম্পন্ন হয়েছে।

৫২০ ঘরের মধ্যে জেলা সদর উপজেলায় ১৮২টি, দৌলতখান উপজেলায় ৪২টি, বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ২৮টি, লালমোহন উপজেলায় ২০টি, তজুমদ্দিন উপজেলায় ১৮টি, চরফ্যাশন উপজেলায় ৩০টি ও মনপুরা উপজেলায় ২০০টি।

প্রতিবন্ধী জ্যোৎস্না, সাফিয়া, পারুল বিবি, সুরমা, আছমা, শহরবানু, বিলকিস সীমা বেগমের মতো বহু নারী যারা এতদিন কুঁড়েঘরে থাকতেন, রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে দিনাতিপাত করতেন, তারা দুই শতাংশ জমি ও নতুন পাকা ঘরে থাকার সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন। লটারির মাধ্যমে পেয়েছেন ঘরের বরাদ্দ। রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমাকে ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নে এসব ঘর নির্মাণের সর্বশেষ সমাপ্তি কাজের তদারিক করতে দেখা যায়।

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার

ভোলায় পাকা ঘর পাচ্ছে ৫২০ দরিদ্র পরিবার

 অমিতাভ অপু, ভোলা 
১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দ্বীপজেলা ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার হিসাবে দুই শতাংশ জমি ও পাকা ভবন (ঘর) বরাদ্দ পেয়ে শোকরিয়া আদায় করছে ৫২০ দরিদ্র পরিবার। এ যেন উন্নত জীবনের প্রতিচ্ছবি। লাল-সবুজের চালা, দুই কক্ষের পাকা ঘর, প্রতি ঘরের সামনে বারান্দা, দুটি বেড রুম, কিচেন, টয়লেটসহ অ্যাটাচড বাথ। সামনে পাকা সড়ক, থাকছে বিদ্যুৎ সংযোগ ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা। আধুনিক ও উন্নত জীবনযাত্রার সব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দরিদ্র পরিবারকে এসব জমি ও ঘর উপহার দিচ্ছেন। ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এসব ঘর বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। একই সঙ্গে ঘর ও জমির দলিল বিতরণ করা হবে ওইদিন। ইতোমধ্যে লটারির মাধ্যমে ঘর বরাদ্দের কাজও সম্পন্ন হয়েছে।

৫২০ ঘরের মধ্যে জেলা সদর উপজেলায় ১৮২টি, দৌলতখান উপজেলায় ৪২টি, বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ২৮টি, লালমোহন উপজেলায় ২০টি, তজুমদ্দিন উপজেলায় ১৮টি, চরফ্যাশন উপজেলায় ৩০টি ও মনপুরা উপজেলায় ২০০টি।

প্রতিবন্ধী জ্যোৎস্না, সাফিয়া, পারুল বিবি, সুরমা, আছমা, শহরবানু, বিলকিস সীমা বেগমের মতো বহু নারী যারা এতদিন কুঁড়েঘরে থাকতেন, রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে দিনাতিপাত করতেন, তারা দুই শতাংশ জমি ও নতুন পাকা ঘরে থাকার সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন। লটারির মাধ্যমে পেয়েছেন ঘরের বরাদ্দ। রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমাকে ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নে এসব ঘর নির্মাণের সর্বশেষ সমাপ্তি কাজের তদারিক করতে দেখা যায়।