বেরোবির আট শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
জোর করে স্বাক্ষর গ্রহণ
বেরোবির আট শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

  রংপুর ব্যুরো  

১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অবরুদ্ধ করে জোরপূর্বক বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার অভিযোগে আট শিক্ষক-কর্মকর্তার নামে মামলা করেছেন রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নাজমুল হক। রংপুর মেট্রোপলিটন তাজহাট থানায় শনিবার রাত ১টার দিকে এ মামলা করা হয়। বেরোবি পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ইজার আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মামলায় শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমানকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন- শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারিকুল ইসলাম, সরকার দলীয় শিক্ষক সংগঠন নীল দলের সাধারণ সম্পাদক আসাদ মণ্ডল, লোক প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক এটিজিএম গোলাম ফিরোজ এবং কলা অনুষদের সহকারী রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ আলী।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, মতিউর রহমানের নেতৃত্বে ১৪ জানুয়ারি সকালে কয়েকজন শিক্ষক-কর্মকর্তা নাজমুল হকের দপ্তরে এসে দরজা বন্ধ করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগের জন্য চাপ দেন। সদ্য প্রকাশিত ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের প্রকাশিত ফল বাতিল ও রসায়ন বিভাগের পুনর্গঠিত পরীক্ষা কমিটি বাতিল সংক্রান্ত একটি চিঠিতে জোর করে তার স্বাক্ষর নেন।

এ ব্যাপারে জানতে মেট্রোপলিটন তাজহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আখতারুজ্জামানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। এর আগে বৃহস্পতিবার উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সামসুল হক একই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

জোর করে স্বাক্ষর গ্রহণ

বেরোবির আট শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

 রংপুর ব্যুরো 
১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অবরুদ্ধ করে জোরপূর্বক বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার অভিযোগে আট শিক্ষক-কর্মকর্তার নামে মামলা করেছেন রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নাজমুল হক। রংপুর মেট্রোপলিটন তাজহাট থানায় শনিবার রাত ১টার দিকে এ মামলা করা হয়। বেরোবি পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ইজার আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মামলায় শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমানকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন- শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারিকুল ইসলাম, সরকার দলীয় শিক্ষক সংগঠন নীল দলের সাধারণ সম্পাদক আসাদ মণ্ডল, লোক প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক এটিজিএম গোলাম ফিরোজ এবং কলা অনুষদের সহকারী রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ আলী।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, মতিউর রহমানের নেতৃত্বে ১৪ জানুয়ারি সকালে কয়েকজন শিক্ষক-কর্মকর্তা নাজমুল হকের দপ্তরে এসে দরজা বন্ধ করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগের জন্য চাপ দেন। সদ্য প্রকাশিত ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের প্রকাশিত ফল বাতিল ও রসায়ন বিভাগের পুনর্গঠিত পরীক্ষা কমিটি বাতিল সংক্রান্ত একটি চিঠিতে জোর করে তার স্বাক্ষর নেন।

এ ব্যাপারে জানতে মেট্রোপলিটন তাজহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আখতারুজ্জামানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। এর আগে বৃহস্পতিবার উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সামসুল হক একই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।