পীরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ
jugantor
পীরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

  পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জেলার পীরগঞ্জে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক মুক্তিযোদ্ধার ছেলেকে নৈশপ্রহরী পদে চাকরি দেওয়ার নামে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক ও বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই মুক্তিযোদ্ধার ছেলে কামাল হোসেন।

অভিযোগে জানা গেছে, পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট ইউনিয়নের চন্দরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরি-কাম নৈশপ্রহরী পদে চাকরি দেওয়ার নামে ২০১৫ সালে করনাই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেনের কাছ থেকে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আখতারুল ইসলাম ৩৭ হাজার, বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম ৫০ হাজার ও সভাপতির ছেলে নাজমুল হক ২০ হাজার এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ডাক্তার মতিউর রহমান ১ লাখ ৩ হাজার টাকা গ্রহণ করেন। কিন্তু ওই বিদ্যালয়ে মুক্তিযোদ্ধার ছেলে কামাল হোসেনকে নিয়োগ না দিয়ে জনৈক আফসার আলী নামে এক ব্যক্তিকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। পরে কামাল হোসেন টাকা ফেরত চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ অন্যরা একজোট হয়ে কামালকে অশ্লীল গালিগালাজ করেন এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। এ ঘটনায় কামাল হোসেন, মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার দুপুরে কামাল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, যারা টাকা নিয়েছেন তারা প্রভাবশালী হওয়ায় আমি টাকা ফেরত পাচ্ছি না। পাওনা টাকা চাইলে তারা আমাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে হুমকি দিচ্ছেন। সে জন্য প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছি। এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলামকে মুঠোফোনে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, এ রকম একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে এটি উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কিনা তা বলতে পারছি না। তবে অভিযোগ যার বিরুদ্ধে হোক তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পীরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

 পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জেলার পীরগঞ্জে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক মুক্তিযোদ্ধার ছেলেকে নৈশপ্রহরী পদে চাকরি দেওয়ার নামে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক ও বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই মুক্তিযোদ্ধার ছেলে কামাল হোসেন।

অভিযোগে জানা গেছে, পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট ইউনিয়নের চন্দরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরি-কাম নৈশপ্রহরী পদে চাকরি দেওয়ার নামে ২০১৫ সালে করনাই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেনের কাছ থেকে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আখতারুল ইসলাম ৩৭ হাজার, বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম ৫০ হাজার ও সভাপতির ছেলে নাজমুল হক ২০ হাজার এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ডাক্তার মতিউর রহমান ১ লাখ ৩ হাজার টাকা গ্রহণ করেন। কিন্তু ওই বিদ্যালয়ে মুক্তিযোদ্ধার ছেলে কামাল হোসেনকে নিয়োগ না দিয়ে জনৈক আফসার আলী নামে এক ব্যক্তিকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। পরে কামাল হোসেন টাকা ফেরত চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ অন্যরা একজোট হয়ে কামালকে অশ্লীল গালিগালাজ করেন এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। এ ঘটনায় কামাল হোসেন, মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার দুপুরে কামাল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, যারা টাকা নিয়েছেন তারা প্রভাবশালী হওয়ায় আমি টাকা ফেরত পাচ্ছি না। পাওনা টাকা চাইলে তারা আমাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে হুমকি দিচ্ছেন। সে জন্য প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছি। এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলামকে মুঠোফোনে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, এ রকম একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে এটি উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কিনা তা বলতে পারছি না। তবে অভিযোগ যার বিরুদ্ধে হোক তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।