মেহেরপুরকে দ্বিতীয় রাজধানী করতে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু
jugantor
মেহেরপুরকে দ্বিতীয় রাজধানী করতে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

  মেহেরপুর প্রতিনিধি  

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের প্রথম রাজধানী মুজিবনগরখ্যাত মেহেরপুরকে দ্বিতীয় রাজধানীর মর্যাদা দিতে চেয়েছিলেন। তিনি স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে লিখিত নির্দেশ দিয়েছিলেন মুজিবনগরকে মূল্যায়নের। ’৭৫ এ সপরিবারে নিহত হওয়ার কারণে তার সেই স্বপ্ন অধরা থেকে গেছে। বঙ্গবন্ধু মেহেরপুরের মুজিবনগর আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিধ্বস্ত দেশ গড়তে গিয়ে তিনি সময় করতে পারেননি।

সেই মুজিবনগরে স্বাধীনতা পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধু কেন আসেননি যুগান্তরের প্রশ্নের জবাবে গাফ্ফার চৌধুরী একথা বলেন। মেহেরপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে সোমবার সন্ধ্যায় ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ বিষয়ে প্রধান আলোচক ছিলেন স্বাধীনতা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক, কথাসাহিত্যিক, কলামিস্ট ও ভাষাসৈনিক আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী।

মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি। জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সবিতা সরকারের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহীন ও পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) পল্লব ভট্টাচার্য।

মেহেরপুরকে দ্বিতীয় রাজধানী করতে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

 মেহেরপুর প্রতিনিধি 
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের প্রথম রাজধানী মুজিবনগরখ্যাত মেহেরপুরকে দ্বিতীয় রাজধানীর মর্যাদা দিতে চেয়েছিলেন। তিনি স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে লিখিত নির্দেশ দিয়েছিলেন মুজিবনগরকে মূল্যায়নের। ’৭৫ এ সপরিবারে নিহত হওয়ার কারণে তার সেই স্বপ্ন অধরা থেকে গেছে। বঙ্গবন্ধু মেহেরপুরের মুজিবনগর আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিধ্বস্ত দেশ গড়তে গিয়ে তিনি সময় করতে পারেননি।

সেই মুজিবনগরে স্বাধীনতা পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধু কেন আসেননি যুগান্তরের প্রশ্নের জবাবে গাফ্ফার চৌধুরী একথা বলেন। মেহেরপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে সোমবার সন্ধ্যায় ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ বিষয়ে প্রধান আলোচক ছিলেন স্বাধীনতা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক, কথাসাহিত্যিক, কলামিস্ট ও ভাষাসৈনিক আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী।

মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি। জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সবিতা সরকারের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহীন ও পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) পল্লব ভট্টাচার্য।