তদন্ত প্রতিবেদন জমা, আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রিফিং
jugantor
কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু
তদন্ত প্রতিবেদন জমা, আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রিফিং

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৪ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার লেখক মুশতাক আহমেদের কারাগারে মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কমিটির প্রধান সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদার। তদন্তের বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘প্রতিবেদনটি সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব স্যারকে দেয়া হয়েছে। উনি তা মন্ত্রী মহোদয়কে দেবেন। পরে এ বিষয়ে মন্ত্রী স্যার কাল (আজ) গণমাধ্যমে ব্রিফ করতে পারেন।’

এর আগে নিজ দফতরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘বন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে যা ওঠে আসবে তা জানিয়ে দেওয়া হবে।’

২৫ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি মুশতাক আহমেদ অচেতন হয়ে পড়েন। দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তার এ মৃত্যু নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন ওঠে এবং তদন্তের দাবি জানায় বিভিন্ন সংগঠন। এ পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার ‘প্রয়োজনে’ তদন্ত কমিটি করা হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। শনিবার তদন্ত কমিটি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারকে প্রধান করে কমিটির সদস্য গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম, ময়মনসিংহের কারা উপমহাপরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির ও গাজীপুর জেলা কারাগারের সহকারী সার্জন ডা. কামরুন নাহার। কমিটির সদস্য সচিব করা হয় সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপসচিব আরিফ আহমদকে। কমিটিকে ৪ কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। সেই সময় শেষ হবে আজ। তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন কিনা জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘তাৎক্ষণিকভাবে কমিটি গঠন করা হয়েছিল। রিপোর্টটা অফিশিয়ালি এখনও আসেনি, কাল আসবে বলে আমরা আশা করছি, যা আসবে (রিপোর্টে) আমরা জানিয়ে দেব।’

এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ‘আজ আপনারা তো শুনেছেন কোর্ট থেকে তাকে (কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর) জামিন দিয়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যাপার হলো আইনটা করা হয়েছিল... অনেকের বিশ্বাসের ওপরে অনেক সময় কার্টুন কিংবা মতামত দিত, তারাই সংক্ষুব্ধ হয়ে মামলা করেছিল। আমাদের দেশে যে দুটি আইন রয়েছে সে আইনে তাদের (মুশতাক ও কিশোর) বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল। সেজন্য তারা আটক হয়েছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘আইন তো সব সময় প্রয়োজনের তাগিদে সংশোধন হয়, আমরা সেগুলো দেখব। আইনের পরিবর্তন তো আমরা করব না, এটা যারা নাকি আইন বোদ্ধা রয়েছেন; এটা পরিবর্তন করতে হলে পার্লামেন্টে যাবে, অনেক কিছু হবে। অনেকেই এখন বলছেন আইন (ডিজিটাল নিরাপত্তা) পরিবর্তনের কথা, এগুলো আমার সাবজেক্ট নয়। এগুলো আইনমন্ত্রী মহোদয়ের সাবজেক্ট। তিনি চিন্তা করবেন এটা নিয়ে।’

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু

তদন্ত প্রতিবেদন জমা, আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রিফিং

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৪ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার লেখক মুশতাক আহমেদের কারাগারে মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কমিটির প্রধান সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদার। তদন্তের বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘প্রতিবেদনটি সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব স্যারকে দেয়া হয়েছে। উনি তা মন্ত্রী মহোদয়কে দেবেন। পরে এ বিষয়ে মন্ত্রী স্যার কাল (আজ) গণমাধ্যমে ব্রিফ করতে পারেন।’

এর আগে নিজ দফতরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘বন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে যা ওঠে আসবে তা জানিয়ে দেওয়া হবে।’

২৫ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি মুশতাক আহমেদ অচেতন হয়ে পড়েন। দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তার এ মৃত্যু নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন ওঠে এবং তদন্তের দাবি জানায় বিভিন্ন সংগঠন। এ পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার ‘প্রয়োজনে’ তদন্ত কমিটি করা হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। শনিবার তদন্ত কমিটি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারকে প্রধান করে কমিটির সদস্য গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম, ময়মনসিংহের কারা উপমহাপরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির ও গাজীপুর জেলা কারাগারের সহকারী সার্জন ডা. কামরুন নাহার। কমিটির সদস্য সচিব করা হয় সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপসচিব আরিফ আহমদকে। কমিটিকে ৪ কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। সেই সময় শেষ হবে আজ। তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন কিনা জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘তাৎক্ষণিকভাবে কমিটি গঠন করা হয়েছিল। রিপোর্টটা অফিশিয়ালি এখনও আসেনি, কাল আসবে বলে আমরা আশা করছি, যা আসবে (রিপোর্টে) আমরা জানিয়ে দেব।’

এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ‘আজ আপনারা তো শুনেছেন কোর্ট থেকে তাকে (কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর) জামিন দিয়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যাপার হলো আইনটা করা হয়েছিল... অনেকের বিশ্বাসের ওপরে অনেক সময় কার্টুন কিংবা মতামত দিত, তারাই সংক্ষুব্ধ হয়ে মামলা করেছিল। আমাদের দেশে যে দুটি আইন রয়েছে সে আইনে তাদের (মুশতাক ও কিশোর) বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল। সেজন্য তারা আটক হয়েছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘আইন তো সব সময় প্রয়োজনের তাগিদে সংশোধন হয়, আমরা সেগুলো দেখব। আইনের পরিবর্তন তো আমরা করব না, এটা যারা নাকি আইন বোদ্ধা রয়েছেন; এটা পরিবর্তন করতে হলে পার্লামেন্টে যাবে, অনেক কিছু হবে। অনেকেই এখন বলছেন আইন (ডিজিটাল নিরাপত্তা) পরিবর্তনের কথা, এগুলো আমার সাবজেক্ট নয়। এগুলো আইনমন্ত্রী মহোদয়ের সাবজেক্ট। তিনি চিন্তা করবেন এটা নিয়ে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন