পীরগঞ্জে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে চলছে ইটভাটা
jugantor
পীরগঞ্জে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে চলছে ইটভাটা

  পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি  

০৬ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসনের গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে পীরগঞ্জের এমবি ইটভাটা প্রায় ২ মাসেও সরিয়ে নেয়া হয়নি। পুরোদমে চলছে ভাটা, গাছের গুড়ি দিয়ে পোড়ানো হচ্ছে ইট।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২৪ জানুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ পৌর শহরের গুয়াগাঁও মহল্লার পীরগঞ্জ-বীরগঞ্জ সড়কের গুয়াগাঁও এমবি ব্রিকফিল্ড ইটভাটার কোনো প্রকার অনুমোদন না থাকায় ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসন ও রংপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের সমন্বয়ে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত এমবি ইটভাটায় অভিযান চালায়। ভাটা লাইসেন্স বা কোনো প্রকার অনুমোদিত কাগজপত্র না থাকায় আদালত বুলডোজার দিয়ে ভাটা একাংশ গুঁড়িয়ে দেয় এবং ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পানি ঢেলে আগুন নিভিয়ে ভাটা বন্ধ করে দেয়। এ সময় মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন এবং এক মাসের মধ্যে ইটভাটা সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়। ভ্রাম্যমাণ আদলতের নির্দেশ অমান্য করে প্রায় ২ মাসেও সরিয়ে নেয়া হয়নি ইটভাটা।

এ বিষয়ে ইটভাটা মালিক শাহজাহান সাংবাদিকদের বলেন, আরও সময় চেয়ে প্রশাসনের কাছে আবেদন করা হয়েছে। নিউজ করার দরকার নাই, আপনাদের সঙ্গে দেখা করব।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম রব্বানী সরদারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমার দায়িত্ব ছিল মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা, সেটা করেছি, বাকিটা জেলা প্রশাসক স্যারের।

উল্লেখ্য, পীরগঞ্জ উপজেলায় জেলা প্রশাসনের ফায়ারিং সার্টিফিকেট ছাড়াই অবৈধ ১৭ ইটভাটায় পুরোদমে ইট পোড়ানোর কাজ অব্যাহত রয়েছে।

পীরগঞ্জে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে চলছে ইটভাটা

 পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি 
০৬ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসনের গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে পীরগঞ্জের এমবি ইটভাটা প্রায় ২ মাসেও সরিয়ে নেয়া হয়নি। পুরোদমে চলছে ভাটা, গাছের গুড়ি দিয়ে পোড়ানো হচ্ছে ইট।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২৪ জানুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ পৌর শহরের গুয়াগাঁও মহল্লার পীরগঞ্জ-বীরগঞ্জ সড়কের গুয়াগাঁও এমবি ব্রিকফিল্ড ইটভাটার কোনো প্রকার অনুমোদন না থাকায় ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসন ও রংপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের সমন্বয়ে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত এমবি ইটভাটায় অভিযান চালায়। ভাটা লাইসেন্স বা কোনো প্রকার অনুমোদিত কাগজপত্র না থাকায় আদালত বুলডোজার দিয়ে ভাটা একাংশ গুঁড়িয়ে দেয় এবং ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পানি ঢেলে আগুন নিভিয়ে ভাটা বন্ধ করে দেয়। এ সময় মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন এবং এক মাসের মধ্যে ইটভাটা সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়। ভ্রাম্যমাণ আদলতের নির্দেশ অমান্য করে প্রায় ২ মাসেও সরিয়ে নেয়া হয়নি ইটভাটা।

এ বিষয়ে ইটভাটা মালিক শাহজাহান সাংবাদিকদের বলেন, আরও সময় চেয়ে প্রশাসনের কাছে আবেদন করা হয়েছে। নিউজ করার দরকার নাই, আপনাদের সঙ্গে দেখা করব।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম রব্বানী সরদারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমার দায়িত্ব ছিল মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা, সেটা করেছি, বাকিটা জেলা প্রশাসক স্যারের।

উল্লেখ্য, পীরগঞ্জ উপজেলায় জেলা প্রশাসনের ফায়ারিং সার্টিফিকেট ছাড়াই অবৈধ ১৭ ইটভাটায় পুরোদমে ইট পোড়ানোর কাজ অব্যাহত রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন