পুলিশ বাদী হয়ে মামলা, গ্রেফতার ৬
jugantor
কসবায় আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ
পুলিশ বাদী হয়ে মামলা, গ্রেফতার ৬

  যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কসবা প্রতিনিধি  

০৮ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় আইনমন্ত্রীর উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগের দুই মেয়র মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে রোববার মামলা করেছে। এদিন বিশেষ অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন কসবা তেতৈয়া এলাকার হৃদয় খান, মো. রাসেল, মো. কাইয়ুম, মো. রবিন, সালাউদ্দিন, নোয়াপাড়ার রবিউল্লাহ। গ্রেফতার ব্যক্তিদের রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্যাট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, কসবা উপজেলা অডিটোরিয়ামে শুক্রবার আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্বোধন করার কিছু আগে দুই মেয়র প্রার্থীর সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। মন্ত্রী চলে যাওয়ার পর আবার দফায় দফায় দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় শনিবার রাতে কসবা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আনোয়ার হোসাইন বাদী হয়ে ২৮ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা আরও ২৫০-২৮০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এ মামলার তদন্তভার দেওয়া হয় পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকির হোসাইনকে।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর ভূঞা বলেন, বাকি আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এজহারনামীয় আসামিদের নাম এখনই বলা যাচ্ছে না।

কসবায় আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ

পুলিশ বাদী হয়ে মামলা, গ্রেফতার ৬

 যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কসবা প্রতিনিধি 
০৮ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় আইনমন্ত্রীর উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগের দুই মেয়র মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে রোববার মামলা করেছে। এদিন বিশেষ অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন কসবা তেতৈয়া এলাকার হৃদয় খান, মো. রাসেল, মো. কাইয়ুম, মো. রবিন, সালাউদ্দিন, নোয়াপাড়ার রবিউল্লাহ। গ্রেফতার ব্যক্তিদের রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্যাট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, কসবা উপজেলা অডিটোরিয়ামে শুক্রবার আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্বোধন করার কিছু আগে দুই মেয়র প্রার্থীর সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। মন্ত্রী চলে যাওয়ার পর আবার দফায় দফায় দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় শনিবার রাতে কসবা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আনোয়ার হোসাইন বাদী হয়ে ২৮ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা আরও ২৫০-২৮০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এ মামলার তদন্তভার দেওয়া হয় পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকির হোসাইনকে।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর ভূঞা বলেন, বাকি আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এজহারনামীয় আসামিদের নাম এখনই বলা যাচ্ছে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন