বগুড়ায় গৃহকর্মীকে কাজের প্রলোভনে ডেকে গণধর্ষণ
jugantor
বগুড়ায় গৃহকর্মীকে কাজের প্রলোভনে ডেকে গণধর্ষণ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার শেরপুরে এক গৃহকর্মীকে কাজের প্রলোভনে ডেকে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেছে চারজন। রাজবাড়ীতে এক গৃহবধূকে ঝাড়ফুঁকের কথা বলে নির্জন মাঠে নিয়ে গণধর্ষণ করা হয়েছে। উভয় ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে কিশোরী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আরেক শ্রমিকের বিরুদ্ধে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বগুড়া ও শেরপুর : পুলিশ ও এজাহার সূত্র জানায়, ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নের ওই গৃহকর্মী কাজের সন্ধানে বৃহস্পতিবার বিকালে শেরপুর উপজেলার ধুনট মোড়ে যান। বিভিন্ন এলাকায় কাজের খোঁজ করে ব্যর্থ হয়ে রাত ৮টার দিকে ফিরে আসছিলেন তিনি। ধুনট মোড়ে সিএনজি অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় মামুন প্রামাণিক, সোহাগ সরকার ও আবদুল খালেক তার কাছে আসেন। তারা বাগড়া হঠাৎপাড়ায় একটি বাসায় কাজের প্রস্তাব দিলে তিনি রাজি হন। পরে তাকে নিয়ে বাগড়া হঠাৎপাড়ায় যান তারা। রাত ৯টার দিকে সেখানে পৌঁছার পর তাকে ফুসলিয়ে একটি পুকুর পাড়ে নেওয়া হয়। সেখানে ওই তিনজনের সঙ্গে যুক্ত হয় শেরপুরের বাগড়া চকপোতা গ্রামের দুলু শেখ। পরে চারজন ওই গৃহকর্মীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ সময় মেয়েটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তিনজনকে ধরে ফেলে। পরে তাদের শেরপুর থানা পুলিশে দেওয়া হয়। থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, ওই নারী থানায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার তিনজন ধর্ষণে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। গ্রেফতার তিনজন হলেন বগুড়ার শেরপুর উপজেলার বাগড়া হঠাৎপাড়ার আবদুস সামাদের ছেলে মামুন প্রামাণিক, একই এলাকার আবুল শেখের ছেলে আবদুল খালেক ও উত্তর সাহাপাড়ার সাইফুল সরকারের ছেলে সোহাগ সরকার।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার চরবাগমারা গ্রামে এক গৃহবধূকে ঝাড়ফুঁক করার কথা বলে মাঠের মধ্যে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকালে রাজবাড়ী সদর থানায় এক কবিরাজ ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূ। পুলিশ অভিযুক্ত কবিরাজ মান্নান গাইয়েন ওরফে মান্নান ও তার সহযোগী ফারুক বিশ্বাসকে গ্রেফতার করেছে। কবিরাজ মান্নান রাজবাড়ী সদর উপজেলার রায়নগর গ্রামের মৃত মোহন গাইয়েনের ছেলে এবং ফারুক বিশ্বাস চরবাগমারা গ্রামের মৃত মনসুর বিশ্বাসের ছেলে।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, ওই গৃহবধূর শরীরে ব্যথা অনুভব করলে তিনি চিকিৎসকের কাছে যান। এতে তার ব্যথা না কমলে ১২ এপ্রিল কবিরাজ মান্নানকে চিকিৎসার জন্য গৃহবধূ তার বাড়িতে ডেকে আনেন। মান্নান গৃহবধূকে জানায়, তাকে রাতে ঝাড়ফুঁক করতে হবে। তার কথা অনুযায়ী, পরদিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয় তিন রাস্তার মোড়ে যান গৃহবধূ। পরে কবিরাজ মান্নান ও তার সহযোগী ফারুক বিলের একটি নির্জন মাঠে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) : এনায়েতপুরে তাঁতের সুতাকাটা এক কিশোরী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে নুর মোহাম্মদ নামে এক তাঁত শ্রমিকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত নুর মোহাম্মদ ভাঙ্গাবাড়ি গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে। শুক্রবার দুপুরে কিশোরীর ভাই বাদী হয়ে এনায়েতপুর থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে নুর মোহাম্মদ পলাতক। এনায়েতপুর থানার ওসি আতাউর রহমান যুগান্তরকে জানান, আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) : গৌরীপুর উপজেলার বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির দু’ছাত্রকে ভয় দেখিয়ে বলাৎকারের অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম হলুদ মাস্টারকে শুক্রবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি ভাংনামারী ইউনিয়নের কুলিয়ারচর গ্রামের জবান আলীর ছেলে।

বগুড়ায় গৃহকর্মীকে কাজের প্রলোভনে ডেকে গণধর্ষণ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার শেরপুরে এক গৃহকর্মীকে কাজের প্রলোভনে ডেকে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেছে চারজন। রাজবাড়ীতে এক গৃহবধূকে ঝাড়ফুঁকের কথা বলে নির্জন মাঠে নিয়ে গণধর্ষণ করা হয়েছে। উভয় ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে কিশোরী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আরেক শ্রমিকের বিরুদ্ধে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বগুড়া ও শেরপুর : পুলিশ ও এজাহার সূত্র জানায়, ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নের ওই গৃহকর্মী কাজের সন্ধানে বৃহস্পতিবার বিকালে শেরপুর উপজেলার ধুনট মোড়ে যান। বিভিন্ন এলাকায় কাজের খোঁজ করে ব্যর্থ হয়ে রাত ৮টার দিকে ফিরে আসছিলেন তিনি। ধুনট মোড়ে সিএনজি অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় মামুন প্রামাণিক, সোহাগ সরকার ও আবদুল খালেক তার কাছে আসেন। তারা বাগড়া হঠাৎপাড়ায় একটি বাসায় কাজের প্রস্তাব দিলে তিনি রাজি হন। পরে তাকে নিয়ে বাগড়া হঠাৎপাড়ায় যান তারা। রাত ৯টার দিকে সেখানে পৌঁছার পর তাকে ফুসলিয়ে একটি পুকুর পাড়ে নেওয়া হয়। সেখানে ওই তিনজনের সঙ্গে যুক্ত হয় শেরপুরের বাগড়া চকপোতা গ্রামের দুলু শেখ। পরে চারজন ওই গৃহকর্মীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ সময় মেয়েটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তিনজনকে ধরে ফেলে। পরে তাদের শেরপুর থানা পুলিশে দেওয়া হয়। থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, ওই নারী থানায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার তিনজন ধর্ষণে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। গ্রেফতার তিনজন হলেন বগুড়ার শেরপুর উপজেলার বাগড়া হঠাৎপাড়ার আবদুস সামাদের ছেলে মামুন প্রামাণিক, একই এলাকার আবুল শেখের ছেলে আবদুল খালেক ও উত্তর সাহাপাড়ার সাইফুল সরকারের ছেলে সোহাগ সরকার।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার চরবাগমারা গ্রামে এক গৃহবধূকে ঝাড়ফুঁক করার কথা বলে মাঠের মধ্যে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকালে রাজবাড়ী সদর থানায় এক কবিরাজ ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূ। পুলিশ অভিযুক্ত কবিরাজ মান্নান গাইয়েন ওরফে মান্নান ও তার সহযোগী ফারুক বিশ্বাসকে গ্রেফতার করেছে। কবিরাজ মান্নান রাজবাড়ী সদর উপজেলার রায়নগর গ্রামের মৃত মোহন গাইয়েনের ছেলে এবং ফারুক বিশ্বাস চরবাগমারা গ্রামের মৃত মনসুর বিশ্বাসের ছেলে।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, ওই গৃহবধূর শরীরে ব্যথা অনুভব করলে তিনি চিকিৎসকের কাছে যান। এতে তার ব্যথা না কমলে ১২ এপ্রিল কবিরাজ মান্নানকে চিকিৎসার জন্য গৃহবধূ তার বাড়িতে ডেকে আনেন। মান্নান গৃহবধূকে জানায়, তাকে রাতে ঝাড়ফুঁক করতে হবে। তার কথা অনুযায়ী, পরদিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয় তিন রাস্তার মোড়ে যান গৃহবধূ। পরে কবিরাজ মান্নান ও তার সহযোগী ফারুক বিলের একটি নির্জন মাঠে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) : এনায়েতপুরে তাঁতের সুতাকাটা এক কিশোরী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে নুর মোহাম্মদ নামে এক তাঁত শ্রমিকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত নুর মোহাম্মদ ভাঙ্গাবাড়ি গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে। শুক্রবার দুপুরে কিশোরীর ভাই বাদী হয়ে এনায়েতপুর থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে নুর মোহাম্মদ পলাতক। এনায়েতপুর থানার ওসি আতাউর রহমান যুগান্তরকে জানান, আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) : গৌরীপুর উপজেলার বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির দু’ছাত্রকে ভয় দেখিয়ে বলাৎকারের অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম হলুদ মাস্টারকে শুক্রবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি ভাংনামারী ইউনিয়নের কুলিয়ারচর গ্রামের জবান আলীর ছেলে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন