চট্টগ্রামে ৭০ হাজার কেজি সরকারি চালসহ আটক ১
jugantor
চট্টগ্রামে ৭০ হাজার কেজি সরকারি চালসহ আটক ১
তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি

  চট্টগ্রাম ব্যুরো ও নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২৩ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে ৭০ হাজার কেজি সরকারি চাল জব্দের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে খাদ্য বিভাগ। কমিটির আহবায়ক করা হয়েছে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের সহকারী নিয়ন্ত্রক অনিল কুমার চাকমাকে। অন্য দুই সদস্য হচ্ছেন- উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (কারিগরি) রূপান্তর চাকমা ও খাদ্য চলাচল সংরক্ষণ নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের উপনিয়ন্ত্রক সুনীল দত্ত। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নিয়ন্ত্রক (আরসি ফুড) জহিরুল ইসলাম খান এ তদন্ত কমিটি গঠন করেন। মঙ্গলবার রাতে নগরীর পাহাড়তলী এলাকার মেসার্স মাহী ট্রেডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গোডাউন থেকে ১৪শ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার করা হয়। চালের বস্তায় বাংলাদেশ সরকার ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সিল ছিল। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের এসআই এসএম সফিউল আজম মুন্সি বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা করেন।

সূত্র জানায়, ভারত থেকে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের আমদানি করা চালের ট্রাক বন্দর জেটি ও খাদ্য অফিস থেকে নোয়াখালীর চরভাটা এলএসডি গোডাউনে যাওয়ার কথা।

কিন্তু সেখানে না গিয়ে পাহাড়তলী চাল বাজারের আড়তদার মেসার্স মাহী ট্রেডার্সের মালিক আব্দুল বাহারের গোডাউনে ঢুকে পড়ে। সেখানে অভিযান চালিয়ে প্রথমে ট্রাকটি জব্দ করা হয়। পরে ওই গোডাউনে অভিযান চালিয়ে সবমিলিয়ে ১৪শ বস্তা চাল জব্দ করে গোয়েন্দা পুলিশ। এ ঘটনায় আব্দুল বাহারকে আটক করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির সদস্য সুনীল দত্ত যুগান্তরকে জানান, তদন্ত শুরু করেছি। আজকেও (বৃহস্পতিবার) বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করেছি। সরকারি চাল লোপাটের ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে তদন্তের মাধ্যমে।

চট্টগ্রামে ৭০ হাজার কেজি সরকারি চালসহ আটক ১

তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি
 চট্টগ্রাম ব্যুরো ও নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২৩ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে ৭০ হাজার কেজি সরকারি চাল জব্দের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে খাদ্য বিভাগ। কমিটির আহবায়ক করা হয়েছে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের সহকারী নিয়ন্ত্রক অনিল কুমার চাকমাকে। অন্য দুই সদস্য হচ্ছেন- উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (কারিগরি) রূপান্তর চাকমা ও খাদ্য চলাচল সংরক্ষণ নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের উপনিয়ন্ত্রক সুনীল দত্ত। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নিয়ন্ত্রক (আরসি ফুড) জহিরুল ইসলাম খান এ তদন্ত কমিটি গঠন করেন। মঙ্গলবার রাতে নগরীর পাহাড়তলী এলাকার মেসার্স মাহী ট্রেডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গোডাউন থেকে ১৪শ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার করা হয়। চালের বস্তায় বাংলাদেশ সরকার ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সিল ছিল। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের এসআই এসএম সফিউল আজম মুন্সি বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা করেন।

সূত্র জানায়, ভারত থেকে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের আমদানি করা চালের ট্রাক বন্দর জেটি ও খাদ্য অফিস থেকে নোয়াখালীর চরভাটা এলএসডি গোডাউনে যাওয়ার কথা।

কিন্তু সেখানে না গিয়ে পাহাড়তলী চাল বাজারের আড়তদার মেসার্স মাহী ট্রেডার্সের মালিক আব্দুল বাহারের গোডাউনে ঢুকে পড়ে। সেখানে অভিযান চালিয়ে প্রথমে ট্রাকটি জব্দ করা হয়। পরে ওই গোডাউনে অভিযান চালিয়ে সবমিলিয়ে ১৪শ বস্তা চাল জব্দ করে গোয়েন্দা পুলিশ। এ ঘটনায় আব্দুল বাহারকে আটক করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির সদস্য সুনীল দত্ত যুগান্তরকে জানান, তদন্ত শুরু করেছি। আজকেও (বৃহস্পতিবার) বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করেছি। সরকারি চাল লোপাটের ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে তদন্তের মাধ্যমে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন