টিকা নিয়ে সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়েছে মানুষ: জিএম কাদের
jugantor
টিকা নিয়ে সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়েছে মানুষ: জিএম কাদের

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১২ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কা?দের এমপি বলেছেন, আন্তর্জাতিক টিকা কূটনীতিতে সাফল্য পাচ্ছে না বাংলাদেশ। সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিদিন টিকা পাওয়ার ব্যাপারে আশার বাণী শোনানো হচ্ছে, কিন্তু দৃশ্যমান কোনো সাফল্য নেই। তিনি বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই গতকাল বলেছেন, অনেক দেশ আমাদের টিকা দিতে সম্মত হয়েছে, কিন্তু কবে দেবে তা কেউ বলতে পারছে না। তাই টিকা নিয়ে সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন সাধারণ মানুষ।

শুক্রবার বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, সাধারণ মানুষের অভিযোগ ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে টিকা আমদানির কারণেই টিকা পাওয়ার বিকল্প উৎস রাখা হয়নি। এতে একটি কোম্পানি টিকা আমদানি করে বেশ কয়েক কোটি টাকা আয় করেছে বলে জানা গেছে, কিন্তু চুক্তি অনুযায়ী টিকা পাওয়া যায়নি।

আবার বিকল্প কোনো উৎস না থাকায় টিকা প্রয়োগের স্বাভাবিক কার্যক্রম অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। তিনি বলেন, এরই মাঝে যারা অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন এমন প্রায় ১৫ লাখ মানুষ আদৌ দ্বিতীয় ডোজ টিকা পাবে কিনা তা এখনো স্পষ্ট নয়। জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, এখন সরকারিভাবে কত দ্রুত করোনার টিকা দেওয়া হবে, দেশের মানুষ সেদিকেই তাকিয়ে আছে।

টিকা নিয়ে সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়েছে মানুষ: জিএম কাদের

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১২ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কা?দের এমপি বলেছেন, আন্তর্জাতিক টিকা কূটনীতিতে সাফল্য পাচ্ছে না বাংলাদেশ। সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিদিন টিকা পাওয়ার ব্যাপারে আশার বাণী শোনানো হচ্ছে, কিন্তু দৃশ্যমান কোনো সাফল্য নেই। তিনি বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই গতকাল বলেছেন, অনেক দেশ আমাদের টিকা দিতে সম্মত হয়েছে, কিন্তু কবে দেবে তা কেউ বলতে পারছে না। তাই টিকা নিয়ে সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন সাধারণ মানুষ।

শুক্রবার বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, সাধারণ মানুষের অভিযোগ ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে টিকা আমদানির কারণেই টিকা পাওয়ার বিকল্প উৎস রাখা হয়নি। এতে একটি কোম্পানি টিকা আমদানি করে বেশ কয়েক কোটি টাকা আয় করেছে বলে জানা গেছে, কিন্তু চুক্তি অনুযায়ী টিকা পাওয়া যায়নি।

আবার বিকল্প কোনো উৎস না থাকায় টিকা প্রয়োগের স্বাভাবিক কার্যক্রম অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। তিনি বলেন, এরই মাঝে যারা অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন এমন প্রায় ১৫ লাখ মানুষ আদৌ দ্বিতীয় ডোজ টিকা পাবে কিনা তা এখনো স্পষ্ট নয়। জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, এখন সরকারিভাবে কত দ্রুত করোনার টিকা দেওয়া হবে, দেশের মানুষ সেদিকেই তাকিয়ে আছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন