রাঙামাটিতে ঘরে ঢুকে গ্রামপ্রধানকে গুলি করে হত্যা
jugantor
রাঙামাটিতে ঘরে ঢুকে গ্রামপ্রধানকে গুলি করে হত্যা

  রাঙামাটি প্রতিনিধি  

১৫ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় গ্রামপ্রধান পাথর মণি চাকমাকে (৬৩) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাত পৌনে ৯টার দিকে ঘরে ঢুকে গ্রামের কারবারি (গ্রামপ্রধান) মণিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। উপজেলা সদর থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে জুরাছড়ি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের লুলাংছড়ি পাহাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জুরাছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল আজম জানান, এ ঘটনার পরপর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাঙামাটি সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রাঙামাটি পুলিশ সুপার মীর মোদ্দাছের হোসেন জানান, একদল অজ্ঞাত বন্দুকধারী ঘরে ঢুকে পাথর মণি চাকমাকে গুলি করে হত্যার পর পালিয়ে যায়। তবে হত্যাকারীদের পরিচয় তাৎক্ষণিক নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, ১৪ মার্চ জুরাছড়িতে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় করা মামলার অন্যতম সাক্ষী ছিলেন মণি চাকমা। ধারণা করা হচ্ছে- প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে হত্যা করে থাকতে পারে। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল যায় পুলিশের একটি টিম। হত্যাকারীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপরতা শুরু হয়েছে।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি ও জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। নিরাপত্তা জোরদারে যৌথবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। জুরাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা বলেন, এলাকাটি খুবই দুর্গম। তবে ঘটনাস্থলের কাছাকাছি সেনাবাহিনীর একটি অস্থায়ী ক্যাম্প রয়েছে।

রাঙামাটিতে ঘরে ঢুকে গ্রামপ্রধানকে গুলি করে হত্যা

 রাঙামাটি প্রতিনিধি 
১৫ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় গ্রামপ্রধান পাথর মণি চাকমাকে (৬৩) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাত পৌনে ৯টার দিকে ঘরে ঢুকে গ্রামের কারবারি (গ্রামপ্রধান) মণিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। উপজেলা সদর থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে জুরাছড়ি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের লুলাংছড়ি পাহাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জুরাছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল আজম জানান, এ ঘটনার পরপর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাঙামাটি সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রাঙামাটি পুলিশ সুপার মীর মোদ্দাছের হোসেন জানান, একদল অজ্ঞাত বন্দুকধারী ঘরে ঢুকে পাথর মণি চাকমাকে গুলি করে হত্যার পর পালিয়ে যায়। তবে হত্যাকারীদের পরিচয় তাৎক্ষণিক নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, ১৪ মার্চ জুরাছড়িতে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় করা মামলার অন্যতম সাক্ষী ছিলেন মণি চাকমা। ধারণা করা হচ্ছে- প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে হত্যা করে থাকতে পারে। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল যায় পুলিশের একটি টিম। হত্যাকারীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপরতা শুরু হয়েছে।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি ও জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। নিরাপত্তা জোরদারে যৌথবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। জুরাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা বলেন, এলাকাটি খুবই দুর্গম। তবে ঘটনাস্থলের কাছাকাছি সেনাবাহিনীর একটি অস্থায়ী ক্যাম্প রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন