জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
রোহিঙ্গাদের এনআইডি প্রদানে সহায়তা
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

১৮ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ও পাসপোর্ট পাইয়ে দিতে সহায়তার অভিযোগে কক্সবাজার জেলার সাবেক নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

অন্যরা হলেন তিন পুলিশ পরিদর্শক ও ১৩ রোহিঙ্গা নাগরিক। দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার সংস্থাটির সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এ মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলো-সাবেক কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম হোসেন, কক্সবাজার জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার তৎকালীন পরিদর্শক এসএম মিজানুর রহমান, রুহুল আমিন ও প্রভাষ চন্দ্র ধর। আর ১৩ রোহিঙ্গা হলো-মো. তৈয়ব, মোহাম্মদ ওয়ায়েস, মোহাম্মদ ইয়াহিয়া, মোহাম্মদ রহিম, আবদুর রহমান, আব্দুল শাকুর, নুর হাবিবা, আমাতুর রহিম, আসাউল হুসনা, আমাতুর রহমান, নুর হামিদা, মোহাম্মদ ওসামা ও হাফেজ নুরুল আলম। মামলার এজাহারে বলা হয়, আসামিরা একে অপরের যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে এই অবৈধ কাজ করেছে। তারা জাল জালিয়াতির আশ্রয়ে ও ভুয়া পরিচয়, নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেতে ও ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তিসহ জাতীয় পরিচয় পত্র ও স্মার্টকার্ড পেতে সহযোগিতা করেছে।

সূত্র জানায়, কক্সবাজার জেলার সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ২শ’ জনের বেশি মিয়ানমার নাগরিক সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধি ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় নাগরিক সনদ, জন্ম নিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র, ভূমিহীন প্রত্যয়নপত্র, স্কুলের প্রত্যয়নপত্র, ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তি, স্মার্টকার্ড এবং বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেয়েছে।

রোহিঙ্গাদের এনআইডি প্রদানে সহায়তা

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
১৮ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ও পাসপোর্ট পাইয়ে দিতে সহায়তার অভিযোগে কক্সবাজার জেলার সাবেক নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

অন্যরা হলেন তিন পুলিশ পরিদর্শক ও ১৩ রোহিঙ্গা নাগরিক। দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার সংস্থাটির সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এ মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলো-সাবেক কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম হোসেন, কক্সবাজার জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার তৎকালীন পরিদর্শক এসএম মিজানুর রহমান, রুহুল আমিন ও প্রভাষ চন্দ্র ধর। আর ১৩ রোহিঙ্গা হলো-মো. তৈয়ব, মোহাম্মদ ওয়ায়েস, মোহাম্মদ ইয়াহিয়া, মোহাম্মদ রহিম, আবদুর রহমান, আব্দুল শাকুর, নুর হাবিবা, আমাতুর রহিম, আসাউল হুসনা, আমাতুর রহমান, নুর হামিদা, মোহাম্মদ ওসামা ও হাফেজ নুরুল আলম। মামলার এজাহারে বলা হয়, আসামিরা একে অপরের যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে এই অবৈধ কাজ করেছে। তারা জাল জালিয়াতির আশ্রয়ে ও ভুয়া পরিচয়, নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেতে ও ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তিসহ জাতীয় পরিচয় পত্র ও স্মার্টকার্ড পেতে সহযোগিতা করেছে।

সূত্র জানায়, কক্সবাজার জেলার সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ২শ’ জনের বেশি মিয়ানমার নাগরিক সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধি ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় নাগরিক সনদ, জন্ম নিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র, ভূমিহীন প্রত্যয়নপত্র, স্কুলের প্রত্যয়নপত্র, ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তি, স্মার্টকার্ড এবং বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন