কলাখালীতে ছয় সহোদরের ‘যন্ত্রণায়’ অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

অন্যের সম্পত্তি হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

  পিরোজপুর প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পিরোজপুর সদর উপজেলার কলাখালী ইউনিয়নের পান্তাডুবি গ্রামের সাধারণ মানুষ একই পরিবারের ছয় সহোদরের ‘যন্ত্রণায়’ অতিষ্ঠ। এলাকাবাসী তাদের ভয়ে সব সময় তটস্থ থাকে। তারা স্বাভাবিক চলাফেরা, এমনকি ‘টু’ শব্দটি পর্যন্ত করার সাহস পাচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই চক্রের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে ক্ষতিগ্রস্তরা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন। সংবাদ কর্মীদের বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। এরপর প্রভাবশালীরা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে, সরকারদলীয় উচ্চপর্যায়ের এক নেতার নাম ভাঙিয়ে চলছে এই জুলুম-অত্যাচার। তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে এলাকার সংখ্যালঘু পরিবারসহ গ্রামের মানুষ এখন চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, সাধারণ মানুষের জায়গা-জমি ক্রয় করার নামে তাদের নয়ছয় বুঝিয়ে জবরদখল করে সেখানে পাকা ভবন ও মার্কেট নির্মাণ করে বহাল তবিয়তে আছেন ছয় সহোদর।

জানা যায়, পান্তাডুবি গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হক খানের ছয় ছেলে- সাইফুল খাঁ, হুমাউন, মিজান, মহসিন, গিয়াস ও রাহাত খাঁ । তারা একজোট হয়ে বছরের পর বছর এলাকায় নির্বিঘ্নে অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। ২৩ এপ্রিল এলাকাবাসী পুলিশ সুপারের কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবির সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ প্রদান করেছেন। এর আগে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সদর থানায় কয়েকটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। একপর্যায়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক ফারুক হোসেন ও মনিরুজ্জামান হুমাউন খানকে আটক করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত আলমগীর হোসেন, শাজাহান ডাকুয়া, কামরুল সেখ, কবির সেখ, হোসনেয়ারা বেগম, কানন বালা ও সঞ্জয় বালাসহ অনেকেই পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করেন, ২০০৭ সালে সঞ্জয় বালার বাবা সুধাংশু বালা ও ব্রজেন্দ্রনাথ বালা ৪৫ শতাংশ জমি প্রতিপক্ষসহ কয়েকজনের কাছে বিক্রি করেন। তার মধ্যে প্রতিপক্ষ হুমাউন খাঁ, সাইফুল খাঁসহ তাদের সহোদররা বিক্রীত জমির দাগের বাইরে পিরোজপুর-কলাখালী রাস্তার পাশের দাগে লাখ টাকা মূল্যের জমি জোরপূর্বক ভোগদখল করে পাকা বাড়ি নির্মাণ করেছে। কলাখালী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন আহম্মেদ বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে দুই পক্ষকে ডেকে একটি রোয়েদাদনামায় স্বাক্ষর করান। সেখানে সাইফুল খাঁ গংকে তাদের বিক্রীত যায়গায় ফিরে যাওয়ার জন্য বলা হলেও তারা আজও নড়ছে না।

এ ব্যাপারে সাইফুল খাঁ যুগান্তরকে জানান, আমাদের সব কাগজপত্র আছে, জোর করে কারও জমি নেয়া যায় না। ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার জুলফিকার আলী খান জানান, তারা এলাকায় নানা অপকর্মে জড়িত। তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক জানান, এ বিষয় গ্রামবাসীর ৫-৬টি জিডি গ্রহণ করা হয়েছে। হুমাউন খাঁকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.