যৌন হয়রানির অভিযোগ

ত্রিশালে ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রীর আত্মহত্যা, শিক্ষক আটক

  ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ত্রিশালে যৌন হয়রানির শিকার সোহাগী (১৩) নামে এক শিশু শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে ঝায়াইরপাড় কাওরানবাড়ির নজরুল ইসলামের মেয়ে। গয়সাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। শনিবার সকালে ঘটনার পর অভিযুক্ত শিক্ষক ও ইমাম মোবারক হোসেনকে (২৮) শ্বশুরবাড়ি থেকে আটক করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের গয়সাপাড়া কাওরানবাড়ি জামে মসজিদের ইমাম ও মক্তব শিক্ষক। তিনি একই উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়নের বাবুল মিয়ার ছেলে।

শনিবার সকালে পানি নিয়ে মক্তবে যায় গয়সাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সোহাগী। ফিরতে দেরি দেখে চাচা সেলিম মক্তবের ভেতরে উঁকি দেন এবং সোহাগীকে জড়িয়ে ধরা অবস্থায় দেখতে পান ইমামকে। বিষয়টি সেলিম মসজিদ-মাদ্রাসার সভাপতি, মেয়ের বড় ভাই আবদুল কাদের জিলানীকে জানান। চাচা সেলিম সোহাগীকে বলেন, তোর বাবা বাড়িতে এলে তোর সঙ্গে কথা আছে। এতে লোকলজ্জা ও ভয়ে সকাল ১০টায় সে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। বড়ভাই জিলানী জানান, মায়ের চিৎকার শুনে ছুটে যান তিনি। সোহাগীর ঘরের দরজা বন্ধ। সারা না পেয়ে দরজা ভাঙেন এবং ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁসিতে ঝুলে থাকতে দেখেন। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ত্রিশাল থানার ওসি জাকিউর রহমান জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সোহাগীর ভাই ত্রিশাল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.