দেশে কার্যকরি বিরোধী দল নেই: কাদের মির্জা
jugantor
দেশে কার্যকরি বিরোধী দল নেই: কাদের মির্জা

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, দেশে এখন কার্যকরি কোনো বিরোধী দল নেই। এজন্যই সারা দেশে দুঃশাসন চলছে। নিজ দল ও রাজনীতির প্রতি এখন চরম ঘৃণা জন্মেছে। আন্দোলনের মাধ্যমেই জনগণের সব অধিকার আদায় করব। বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে শনিবার বেলা ১১টায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের মির্জা বলেন, নোয়াখালীর এমপি একরামুল করিম চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল গংরা কীভাবে সংসদে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করিয়েছে তা আমি জানি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড ছিল জেনারেল জিয়াউর রহমান। ভোট চুরি, টেন্ডারবাজি, নিয়োগ বাণিজ্য, অপরাজনীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে বলি বলে আমার দলের লোকজনসহ সব অপশক্তি আমার বিরুদ্ধে লেগে গেছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন-ব্যারিস্টার সুমনকে কীভাবে যুবলীগের নেতা বানানো হয়। সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের তীব্র সমালোচনা করে কাদের মির্জা বলেন, ‘আপনি বলেছেন ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন। কিন্তু সেটা না দিলেও ঘরে ঘরে মামলা দিয়েছেন। আপনার স্ত্রী ইসরাতুন্নেছা কাদের নোয়াখালীর অপরাজনীতির হোতাদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমার নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। তিনি আমাকে হত্যা করার জন্য কোটি কোটি টাকা দিয়েছেন। ওবায়দুল কাদের সাহেব এর জবাব আপনাকে দিতে হবে।’ তিনি বলেন, কোম্পানীগঞ্জের চরাঞ্চলের হাজার হাজার একর সরকারি খাসজমি দখল করে জোতদার শাহীন, বাদল, রাজ্জাকরা ২০০ খামার গড়ে তুলেছে। চরহাজারী, মুছাপুর, চরএলাহী ইউপি চেয়ারম্যান হুদা, শাহীন, রাজ্জাকরা ভিজিডি-ভিজিএফের চাল চুরি করে ধরা পড়লেও মামলা হয় না।

এমপি একরামুল করিম চৌধুরী নোয়াখালীর সব জায়গায় কিশোর গ্যাং গড়ে তুলেছেন। এ সময় আবদুল কাদের মির্জা তার নেতাকর্মীদের মুক্তিসহ দুর্নীতিবাজদের বিচারের দাবিতে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সব ইউনিয়নে অবস্থান ও পৌরসভার সব ওয়ার্ডে বিক্ষোভ মিছিল ঘোষণা করেন।

দেশে কার্যকরি বিরোধী দল নেই: কাদের মির্জা

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, দেশে এখন কার্যকরি কোনো বিরোধী দল নেই। এজন্যই সারা দেশে দুঃশাসন চলছে। নিজ দল ও রাজনীতির প্রতি এখন চরম ঘৃণা জন্মেছে। আন্দোলনের মাধ্যমেই জনগণের সব অধিকার আদায় করব। বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে শনিবার বেলা ১১টায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের মির্জা বলেন, নোয়াখালীর এমপি একরামুল করিম চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল গংরা কীভাবে সংসদে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করিয়েছে তা আমি জানি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড ছিল জেনারেল জিয়াউর রহমান। ভোট চুরি, টেন্ডারবাজি, নিয়োগ বাণিজ্য, অপরাজনীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে বলি বলে আমার দলের লোকজনসহ সব অপশক্তি আমার বিরুদ্ধে লেগে গেছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন-ব্যারিস্টার সুমনকে কীভাবে যুবলীগের নেতা বানানো হয়। সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের তীব্র সমালোচনা করে কাদের মির্জা বলেন, ‘আপনি বলেছেন ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন। কিন্তু সেটা না দিলেও ঘরে ঘরে মামলা দিয়েছেন। আপনার স্ত্রী ইসরাতুন্নেছা কাদের নোয়াখালীর অপরাজনীতির হোতাদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমার নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। তিনি আমাকে হত্যা করার জন্য কোটি কোটি টাকা দিয়েছেন। ওবায়দুল কাদের সাহেব এর জবাব আপনাকে দিতে হবে।’ তিনি বলেন, কোম্পানীগঞ্জের চরাঞ্চলের হাজার হাজার একর সরকারি খাসজমি দখল করে জোতদার শাহীন, বাদল, রাজ্জাকরা ২০০ খামার গড়ে তুলেছে। চরহাজারী, মুছাপুর, চরএলাহী ইউপি চেয়ারম্যান হুদা, শাহীন, রাজ্জাকরা ভিজিডি-ভিজিএফের চাল চুরি করে ধরা পড়লেও মামলা হয় না।

এমপি একরামুল করিম চৌধুরী নোয়াখালীর সব জায়গায় কিশোর গ্যাং গড়ে তুলেছেন। এ সময় আবদুল কাদের মির্জা তার নেতাকর্মীদের মুক্তিসহ দুর্নীতিবাজদের বিচারের দাবিতে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সব ইউনিয়নে অবস্থান ও পৌরসভার সব ওয়ার্ডে বিক্ষোভ মিছিল ঘোষণা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন