রাবির সাবেক ভিসির বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন
jugantor
রাবির সাবেক ভিসির বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন

  রাজশাহী ব্যুরো  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাবেক উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের দায়িত্ব পালনকালে অনিয়ম, অস্বচ্ছতা, স্বেচ্ছাচারিতা ও আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বৃহস্পতিবার এ প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব জামিলুর রহমান।

তবে প্রতিবেদনে কী কী সুপারিশ করা হয়েছে সে বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি হননি তদন্ত কমিটির কেউ। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানিয়েছে, রাবির সাবেক ভিসি ড. সোবহানের বিরুদ্ধে ওঠা অস্বচ্ছতা, স্বেচ্ছাচারিতা, ও অনেক অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। এছাড়া তার শেষ কর্মদিবসে ১৩৮ জনের নিয়োগেও ব্যাপক অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। প্রতিবেদনে ১৩৮ জনের নিয়োগ বাতিল, সাবেক ভিসিসহ সংশ্লিষ্ট কয়েকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াসহ বেশ কয়েকটি সুপারিশ করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজের কাছে জানতে চাইলে যুগান্তরকে তিনি বলেন, তদন্তের বিষয়টি গোপনীয়। সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতায় সঠিকভাবে তদন্তের কাজ শেষ করে প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছি। সেখানে যেসব অনিয়ম প্রমাণিত হয়েছে সেগুলোর বিষয়ে সুপারিশ করেছি। এখন সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

রাবির সাবেক ভিসির বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন

 রাজশাহী ব্যুরো 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাবেক উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের দায়িত্ব পালনকালে অনিয়ম, অস্বচ্ছতা, স্বেচ্ছাচারিতা ও আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বৃহস্পতিবার এ প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব জামিলুর রহমান।

তবে প্রতিবেদনে কী কী সুপারিশ করা হয়েছে সে বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি হননি তদন্ত কমিটির কেউ। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানিয়েছে, রাবির সাবেক ভিসি ড. সোবহানের বিরুদ্ধে ওঠা অস্বচ্ছতা, স্বেচ্ছাচারিতা, ও অনেক অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। এছাড়া তার শেষ কর্মদিবসে ১৩৮ জনের নিয়োগেও ব্যাপক অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। প্রতিবেদনে ১৩৮ জনের নিয়োগ বাতিল, সাবেক ভিসিসহ সংশ্লিষ্ট কয়েকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াসহ বেশ কয়েকটি সুপারিশ করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজের কাছে জানতে চাইলে যুগান্তরকে তিনি বলেন, তদন্তের বিষয়টি গোপনীয়। সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতায় সঠিকভাবে তদন্তের কাজ শেষ করে প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছি। সেখানে যেসব অনিয়ম প্রমাণিত হয়েছে সেগুলোর বিষয়ে সুপারিশ করেছি। এখন সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন