বাউফলে খাল দখল করে আ.লীগ অফিস
jugantor
বাউফলে খাল দখল করে আ.লীগ অফিস

  বাউফল ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালিশুরী বাজার খাল দখল করে আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়েছে। এক সময় এই খালে বিভিন্ন ধরনের নৌকা নোঙর করে কালিশুরী বাজার থেকে যাত্রী ও পণ্য উঠানামা করা হতো। কিন্তু এখন আর সেই অবস্থা নেই।

সরেজমিনে দেখা যায়, খালটির পূর্ব প্রান্তে দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে কালিশুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিস। আর অপর প্রান্তে বাঁধ দিয়ে একাধিক বাড়িতে প্রবেশপথ তৈরি করেছেন এলাকাবাসী। অব্যাহত দখল আর দূষণে কালিশুরী বাজার খালটি মরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। কালিশুরী থেকে ধুলিয়া ইউনিয়নে যেতে যে সড়কটি নির্মাণ করা হয়েছে সেখানেও কোনো কালভার্ট নির্মাণ না করায় খালটি মরে গেছে। খালটি মরে যাওয়ায় কালিশুরী বাজারের উত্তর মাথায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন এলাকাবাসী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ খালটি দখল করার পর আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়। এরপরই এলাকাবাসী খালটি দখল উৎসবে মেতে ওঠেন। কালিশুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ নেছার উদ্দিন জামাল সিকদার বলেন, খালটির কিছু অংশে আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়েছে। বাকিটা রেকর্ডীয় সম্পত্তি। তাছাড়া খাল দখল করে দলীয় অফিস নির্মাণ করাটা দোষের কিছু নয়। জনগণের কল্যাণেই অফিস ব্যবহার হচ্ছে। কালিশুরী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুল জব্বার আকন বলেন, শিগগিরই কালিশুরী বাজার খাল থেকে সব ধরনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বাউফলে খাল দখল করে আ.লীগ অফিস

 বাউফল ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালিশুরী বাজার খাল দখল করে আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়েছে। এক সময় এই খালে বিভিন্ন ধরনের নৌকা নোঙর করে কালিশুরী বাজার থেকে যাত্রী ও পণ্য উঠানামা করা হতো। কিন্তু এখন আর সেই অবস্থা নেই।

সরেজমিনে দেখা যায়, খালটির পূর্ব প্রান্তে দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে কালিশুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিস। আর অপর প্রান্তে বাঁধ দিয়ে একাধিক বাড়িতে প্রবেশপথ তৈরি করেছেন এলাকাবাসী। অব্যাহত দখল আর দূষণে কালিশুরী বাজার খালটি মরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। কালিশুরী থেকে ধুলিয়া ইউনিয়নে যেতে যে সড়কটি নির্মাণ করা হয়েছে সেখানেও কোনো কালভার্ট নির্মাণ না করায় খালটি মরে গেছে। খালটি মরে যাওয়ায় কালিশুরী বাজারের উত্তর মাথায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন এলাকাবাসী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ খালটি দখল করার পর আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়। এরপরই এলাকাবাসী খালটি দখল উৎসবে মেতে ওঠেন। কালিশুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ নেছার উদ্দিন জামাল সিকদার বলেন, খালটির কিছু অংশে আওয়ামী লীগ অফিস নির্মাণ করা হয়েছে। বাকিটা রেকর্ডীয় সম্পত্তি। তাছাড়া খাল দখল করে দলীয় অফিস নির্মাণ করাটা দোষের কিছু নয়। জনগণের কল্যাণেই অফিস ব্যবহার হচ্ছে। কালিশুরী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুল জব্বার আকন বলেন, শিগগিরই কালিশুরী বাজার খাল থেকে সব ধরনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন