ভাণ্ডারিয়ায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার ডুবে একজনের মৃত্যু
jugantor
ভাণ্ডারিয়ায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার ডুবে একজনের মৃত্যু

  ভাণ্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভাণ্ডারিয়ার পোনা নদীতে রোববার দুপুর আড়াইটায় ভাণ্ডারিয়া-ঢাকা নৌরুটে চলাচলকারী ঢাকাগামী এমভি টিপু-১২ এর ধাক্কায় একটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলার ডুবে যায়। এতে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে চারজন। মারা যাওয়া ব্যক্তি হলেন- নাজিরপুর উপজেলার বৈঠাঘাটা এলাকার আব্দুর রশিদ গোমস্তা (৬৫)। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে তিনি মারা যান। কাঁঠালিয়া উপজেলার বড় কাঁঠালিয়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস হাওলাদারকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঢাকাগামী এমভি ফারহান-১০ ও এমভি টিপু-১২ দুপুর আড়াইটার দিকে ভাণ্ডারিয়া লঞ্চঘাট থেকে ছেড়ে যায়। কিছু দূর গিয়েই দুই লঞ্চের মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়। লঞ্চ দুটি পোনা ও কচা নদীর মোহনায় পৌঁছলে টিপু-১২ লঞ্চটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলারকে ধাক্কা দিলে ট্রলারটি ডুবে যায়।

রশিদ গোমস্তার ছেলে মাসুদ জানান, বাবা ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলা বাজার থেকে চারা বিক্রি করে নাজিরপুরের উপজেলার বৈঠাঘাটা গ্রামের ফিরছিলেন। আমি ও আমার ভাই সুমন লাফিয়ে নদীতে পড়ে প্রাণে রক্ষা পাই। দুটি নৌযানের প্রতিযোগিতার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানান মাসুদ। বরিশাল বন্দর পরিবহণ কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, তদন্ত শেষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভাণ্ডারিয়ায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার ডুবে একজনের মৃত্যু

 ভাণ্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভাণ্ডারিয়ার পোনা নদীতে রোববার দুপুর আড়াইটায় ভাণ্ডারিয়া-ঢাকা নৌরুটে চলাচলকারী ঢাকাগামী এমভি টিপু-১২ এর ধাক্কায় একটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলার ডুবে যায়। এতে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে চারজন। মারা যাওয়া ব্যক্তি হলেন- নাজিরপুর উপজেলার বৈঠাঘাটা এলাকার আব্দুর রশিদ গোমস্তা (৬৫)। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে তিনি মারা যান। কাঁঠালিয়া উপজেলার বড় কাঁঠালিয়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস হাওলাদারকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঢাকাগামী এমভি ফারহান-১০ ও এমভি টিপু-১২ দুপুর আড়াইটার দিকে ভাণ্ডারিয়া লঞ্চঘাট থেকে ছেড়ে যায়। কিছু দূর গিয়েই দুই লঞ্চের মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়। লঞ্চ দুটি পোনা ও কচা নদীর মোহনায় পৌঁছলে টিপু-১২ লঞ্চটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলারকে ধাক্কা দিলে ট্রলারটি ডুবে যায়।

রশিদ গোমস্তার ছেলে মাসুদ জানান, বাবা ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলা বাজার থেকে চারা বিক্রি করে নাজিরপুরের উপজেলার বৈঠাঘাটা গ্রামের ফিরছিলেন। আমি ও আমার ভাই সুমন লাফিয়ে নদীতে পড়ে প্রাণে রক্ষা পাই। দুটি নৌযানের প্রতিযোগিতার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানান মাসুদ। বরিশাল বন্দর পরিবহণ কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, তদন্ত শেষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন