ভারতের নাগরিক নদী সাঁতরে বাংলাদেশে
jugantor
ভারতের নাগরিক নদী সাঁতরে বাংলাদেশে

  সিলেট ব্যুরো  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নদী সাঁতরে বাংলাদেশে ভারতের ছত্রিশগড়ের সীতারাম অবৈধভাবে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে অনুপ্রবেশ করায় তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অনুপ্রবেশের ব্যাপারে সীতারাম পুলিশকে জানান, মহৎ বা অসৎ কোনো উদ্দেশ্যই তার নেই। নদীর ওপার থেকে সাঁতরে এপারে এসেছেন। তার পুরো নাম সীতারাম লাল চন্দ। তিনি ভারতের ছত্রিশগড়ের বিলাসপুর জেলার মরোয়ারী থানাধীন মাটিয়াঢাল এলাকার শ্যামলাল চন্দ্র দাসের ছেলে।

সিলেট নগরীর রেলস্টেশন সংলগ্ন ভার্থখলা এলাকায় বাংলা ও হিন্দি ভাষায় কথা বলার সময় স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর সীতারামের কাছে পাসপোর্ট বা কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। তার বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ মামলা করে। তাকে শনিবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান তালুকদার জানান, সীতারাম বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর ৫৩ দিন ভারতেই ছিলেন। এরপর জাফলং সীমান্ত দিয়ে নদী সাঁতরে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন।

ভারতের নাগরিক নদী সাঁতরে বাংলাদেশে

 সিলেট ব্যুরো 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নদী সাঁতরে বাংলাদেশে ভারতের ছত্রিশগড়ের সীতারাম অবৈধভাবে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে অনুপ্রবেশ করায় তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অনুপ্রবেশের ব্যাপারে সীতারাম পুলিশকে জানান, মহৎ বা অসৎ কোনো উদ্দেশ্যই তার নেই। নদীর ওপার থেকে সাঁতরে এপারে এসেছেন। তার পুরো নাম সীতারাম লাল চন্দ। তিনি ভারতের ছত্রিশগড়ের বিলাসপুর জেলার মরোয়ারী থানাধীন মাটিয়াঢাল এলাকার শ্যামলাল চন্দ্র দাসের ছেলে।

সিলেট নগরীর রেলস্টেশন সংলগ্ন ভার্থখলা এলাকায় বাংলা ও হিন্দি ভাষায় কথা বলার সময় স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর সীতারামের কাছে পাসপোর্ট বা কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। তার বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ মামলা করে। তাকে শনিবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান তালুকদার জানান, সীতারাম বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর ৫৩ দিন ভারতেই ছিলেন। এরপর জাফলং সীমান্ত দিয়ে নদী সাঁতরে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন