২২ বছর পর ভাতিজার কাছে চেয়ার হারালেন মেয়র বাতেন
jugantor
বেড়া পৌর নির্বাচন
২২ বছর পর ভাতিজার কাছে চেয়ার হারালেন মেয়র বাতেন

  পাবনা প্রতিনিধি  

৩০ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনার বেড়া পৌরসভায় রোববারের নির্বাচনে চাচাকে বিপুল ভোটে হারিয়ে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট আসিফ শামস রঞ্জন। আর এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ২২ বছর পর নিজের ভাতিজার কাছেই চেয়ার হারালেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতেন। শুধু তাই নয়, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এই প্রার্থীর কাছে চাচা বাতেনসহ অপর ৪ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। আসিফ শামস রঞ্জন নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২১ হাজার ৮৮৩ ভোট এবং তার চাচা মেয়র ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল বাতেন নারিকেল গাছ প্রতীকে পেয়েছেন তিন হাজার ৬৬০ ভোট।

বাতেন নির্বাচন ছাড়াও মামলার মাধ্যমে টানা ২২ বছর বেড়া পৌরসভায় মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যালিটি অ্যাসোসিয়েশনেরও সভাপতি ছিলেন। নির্বাচনের ফলাফল এখন সব মহলে আলোচনার বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। মেয়র পদে বিজয়ী রঞ্জন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকুর ছেলে এবং বাতেন টুকুর ছোট ভাই। সম্প্রতি বাতেনকে নানা কারণ দেখিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এরপর এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মেয়র পদে মনোনয়ন দেয় তার ভাতিজা যুবনেতা রঞ্জনকে। বাতেন এর পরও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মাঠে থাকেন জোরেশোরে। এ ছাড়া আওয়ামী লীগ নেতা ফজলুর রহমান মাসুদ ও বাতেনের এক ভাতিজি সাদিয়া আলমও মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। পর্যবেক্ষকদের মতে, এসব কারণে এবারের বেড়া পৌর নির্বাচন ছিল তাৎপর্যপূর্ণ।

বেড়া পৌর নির্বাচন

২২ বছর পর ভাতিজার কাছে চেয়ার হারালেন মেয়র বাতেন

 পাবনা প্রতিনিধি 
৩০ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনার বেড়া পৌরসভায় রোববারের নির্বাচনে চাচাকে বিপুল ভোটে হারিয়ে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট আসিফ শামস রঞ্জন। আর এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ২২ বছর পর নিজের ভাতিজার কাছেই চেয়ার হারালেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতেন। শুধু তাই নয়, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এই প্রার্থীর কাছে চাচা বাতেনসহ অপর ৪ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। আসিফ শামস রঞ্জন নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২১ হাজার ৮৮৩ ভোট এবং তার চাচা মেয়র ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল বাতেন নারিকেল গাছ প্রতীকে পেয়েছেন তিন হাজার ৬৬০ ভোট।

বাতেন নির্বাচন ছাড়াও মামলার মাধ্যমে টানা ২২ বছর বেড়া পৌরসভায় মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যালিটি অ্যাসোসিয়েশনেরও সভাপতি ছিলেন। নির্বাচনের ফলাফল এখন সব মহলে আলোচনার বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। মেয়র পদে বিজয়ী রঞ্জন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকুর ছেলে এবং বাতেন টুকুর ছোট ভাই। সম্প্রতি বাতেনকে নানা কারণ দেখিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এরপর এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মেয়র পদে মনোনয়ন দেয় তার ভাতিজা যুবনেতা রঞ্জনকে। বাতেন এর পরও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মাঠে থাকেন জোরেশোরে। এ ছাড়া আওয়ামী লীগ নেতা ফজলুর রহমান মাসুদ ও বাতেনের এক ভাতিজি সাদিয়া আলমও মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। পর্যবেক্ষকদের মতে, এসব কারণে এবারের বেড়া পৌর নির্বাচন ছিল তাৎপর্যপূর্ণ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন