দুদকের মামলায় আ.লীগ নেতার ভাই কারাগারে
jugantor
সিলেটে জমি দখল
দুদকের মামলায় আ.লীগ নেতার ভাই কারাগারে

  সিলেট ব্যুরো  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভুয়া দলিলে চার কোটি টাকার সরকারি জমি হাতিয়ে নেওয়ার অপরাধে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলীর ভাই মো. মুসলিম আলীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় বুধবার সিলেটের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে তা না-মঞ্জুর করেন বিচারক মো. বজলুর রহমান। মামলার তিন নম্বর আসামী লিয়াকত আলী ১০ নভেম্বর একই আদালতে জামিন পান। এর আগে ১ মার্চ আদালতে অভিযোগপত্রটি জমা দেন দুদক সিলেটের আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক আশরাফ উদ্দিন। পরে ২৮ অক্টোবর আদালত দুদকের দেওয়া চার্জশিট গ্রহণ করে আসামীদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। মামলার প্রধান আসামী আখলাকুল আম্বিয়া চৌধুরী, আজির উদ্দিন, মো. মীর জাহান ও তৎকালীন সাবরেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন সরকার পলাতক রয়েছেন বলে বাদিপক্ষের আইনজীবী শহিদুজ্জামান চৌধুরী নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩ জানুয়ারি যুগান্তরে ‘ভুয়া দলিলে সরকারি জমি আ.লীগ নেতার’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। ওই প্রতিবেদনের সূত্র ধরে ২০১৮ সালের ৭ মার্চ সিলেটের সিনিয়র বিশেষ জজ আদালতে জৈন্তাপুরের করগ্রামের মনির আহমদ জৈন্তাপুরের নিজপাট ইউনিয়নের চার কোটি টাকা মূল্যের সরকারি ভূমি অবৈধভাবে কেনাবেচার অভিযোগে মামলা করেন।

সিলেটে জমি দখল

দুদকের মামলায় আ.লীগ নেতার ভাই কারাগারে

 সিলেট ব্যুরো 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভুয়া দলিলে চার কোটি টাকার সরকারি জমি হাতিয়ে নেওয়ার অপরাধে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলীর ভাই মো. মুসলিম আলীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় বুধবার সিলেটের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে তা না-মঞ্জুর করেন বিচারক মো. বজলুর রহমান। মামলার তিন নম্বর আসামী লিয়াকত আলী ১০ নভেম্বর একই আদালতে জামিন পান। এর আগে ১ মার্চ আদালতে অভিযোগপত্রটি জমা দেন দুদক সিলেটের আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক আশরাফ উদ্দিন। পরে ২৮ অক্টোবর আদালত দুদকের দেওয়া চার্জশিট গ্রহণ করে আসামীদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। মামলার প্রধান আসামী আখলাকুল আম্বিয়া চৌধুরী, আজির উদ্দিন, মো. মীর জাহান ও তৎকালীন সাবরেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন সরকার পলাতক রয়েছেন বলে বাদিপক্ষের আইনজীবী শহিদুজ্জামান চৌধুরী নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩ জানুয়ারি যুগান্তরে ‘ভুয়া দলিলে সরকারি জমি আ.লীগ নেতার’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। ওই প্রতিবেদনের সূত্র ধরে ২০১৮ সালের ৭ মার্চ সিলেটের সিনিয়র বিশেষ জজ আদালতে জৈন্তাপুরের করগ্রামের মনির আহমদ জৈন্তাপুরের নিজপাট ইউনিয়নের চার কোটি টাকা মূল্যের সরকারি ভূমি অবৈধভাবে কেনাবেচার অভিযোগে মামলা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন