কেসিসি নির্বাচনের পর নগরীতে সহিংসতা বাড়ছে

  খুলনা ব্যুরো ২১ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনের পর নগরীতে সহিংসতা বাড়ছে। গত চার দিনে নগরীর দুটি ওয়ার্ডে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছে প্রায় ১৫ জন। নগরীর ৫ এবং ৬নং ওয়ার্ডে পৃথক ঘটনায় পুলিশ অস্ত্রসহ কয়েকজনকে আটক করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শনিবার রাতে নগরীর ৭নং ওয়ার্ডের কাশিপুর এলাকায় দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় কাশিপুর পদ্মা গেট এলাকার মৃত মতিয়ার রহমানের ছেলে এনাম মুন্সি (৪৭) ও বাবুসহ দু’জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে আটক করেছে। একই সঙ্গে একটি বিদেশি পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। আটকরা হল- কাশিপুর মেঘনা গেট এলাকার মো. ইমরান হাসান (২৪), মো. মাহফুজ (২২), খালিদ বিন ওয়ালিদ (২৬), পাপ্পু সরদার (২১), মো. সুমন (২১) ও মো. সানি (২৮)। এদের মধ্যে ইমরান হাসানের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, নির্বাচিত কাউন্সিলর সুলতান মাহমুদ পিন্টু ও পরাজিত আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী মো. সেলিম আহমেদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এনাম মুন্সী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সেলিমের নির্বাচনে সক্রিয়ভাবে কাজ করেছিলেন। এরই অংশ হিসেবে হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে নগরীর দৌলতপুর বাজারে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলীর ওপর হামলা হয়। দৌলতপুর বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক শেখ আসলামের সমর্থকরা কাউন্সিলরকে লাঞ্ছিতসহ তার বাসভবনে হামলা করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। এ সময় সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে।

শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, নির্বাচনে জয়লাভের পর দৌলতপুর বাজারে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে যান। এ সময় বাজারের সাধারণ সম্পাদক আসলাম তাকে বাধা দেন ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এ ঘটনায় দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে স্থানীয় দেয়ানা এলাকার কিছু লোকজন আঞ্জুমান রোডে কাউন্সিলরের বাড়িতে হামলা করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ২ রাউন্ড গুলি করে।

দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) সুজিৎ মন্ডল জানান, দু’পক্ষের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণে কিছুটা বিশৃঙ্খলা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×