সাতজনের ৭ বছর করে কারাদণ্ড
jugantor
নাটোরে জোড়া খুন
সাতজনের ৭ বছর করে কারাদণ্ড

  নাটোর প্রতিনিধি  

২৫ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নাটোরের জেলা ও দায়রা জজ আদালত সোমবার একটি জোড়া খুনের মামলায় সাত আসামিকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন। একইসঙ্গে বিচারক সাজাপ্রাপ্তদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। সোমবার দুপুরে নাটোরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শরিফ উদ্দিন এই রায় দেন।

১৯৯৪ সালের ২৭ জানুয়ারি নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়নের মৌগ্রামে শবেবরাতের রাতে তাবারক বিতরণকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের আক্কাস আলী ও সিকিম প্রামাণিকের সঙ্গে আব্দুল কুদ্দুস সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আব্দুল কুদ্দুস সমর্থকদের হামলায় আক্কাস আলী ও সিকিম প্রামাণিক আহত হন। স্বজনরা তাদের হাসপাতালে নেওয়ার পথে দুজনেরই মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় পরের দিন সিকিম প্রামাণিকের ছেলে আমির হামজা ১০ জনকে অভিযুক্ত করে সিংড়া থানায় হত্যা মামলা করেন। দীর্ঘ ২৮ বছর তদন্ত ও সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক সোমবার অভিযুক্তদের মধ্যে সাতজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড ও একজনকে খালাসের আদেশ দেন। মামলার অপর দুই আসামি ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। মামলার রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্তরা আদালতের এজলাসে হাজির ছিলেন। পরে দণ্ডপ্রাপ্তদের নাটোর কারাগারে নেওয়া হয়। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের এপিপি আরিফ সরকার ও আসামি পক্ষে সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন মন্টু রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামি পক্ষের আইনজীবী সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন মন্টু জানান, এ মামলায় রায় ঘোষণার দিন থেকেই দণ্ডাদেশ কার্যকর হবে।

নাটোরে জোড়া খুন

সাতজনের ৭ বছর করে কারাদণ্ড

 নাটোর প্রতিনিধি 
২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নাটোরের জেলা ও দায়রা জজ আদালত সোমবার একটি জোড়া খুনের মামলায় সাত আসামিকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন। একইসঙ্গে বিচারক সাজাপ্রাপ্তদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। সোমবার দুপুরে নাটোরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শরিফ উদ্দিন এই রায় দেন।

১৯৯৪ সালের ২৭ জানুয়ারি নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়নের মৌগ্রামে শবেবরাতের রাতে তাবারক বিতরণকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের আক্কাস আলী ও সিকিম প্রামাণিকের সঙ্গে আব্দুল কুদ্দুস সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আব্দুল কুদ্দুস সমর্থকদের হামলায় আক্কাস আলী ও সিকিম প্রামাণিক আহত হন। স্বজনরা তাদের হাসপাতালে নেওয়ার পথে দুজনেরই মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় পরের দিন সিকিম প্রামাণিকের ছেলে আমির হামজা ১০ জনকে অভিযুক্ত করে সিংড়া থানায় হত্যা মামলা করেন। দীর্ঘ ২৮ বছর তদন্ত ও সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক সোমবার অভিযুক্তদের মধ্যে সাতজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড ও একজনকে খালাসের আদেশ দেন। মামলার অপর দুই আসামি ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। মামলার রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্তরা আদালতের এজলাসে হাজির ছিলেন। পরে দণ্ডপ্রাপ্তদের নাটোর কারাগারে নেওয়া হয়। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের এপিপি আরিফ সরকার ও আসামি পক্ষে সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন মন্টু রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামি পক্ষের আইনজীবী সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন মন্টু জানান, এ মামলায় রায় ঘোষণার দিন থেকেই দণ্ডাদেশ কার্যকর হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন