গুরুদাসপুর পোস্ট অফিসে আড়াই লাখ টাকা চুরি
jugantor
গুরুদাসপুর পোস্ট অফিসে আড়াই লাখ টাকা চুরি

  গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি  

২৮ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গুরুদাসপুর উপজেলা পোস্ট অফিসের ভেন্টিলেটর ভেঙে টাকা চুরির ঘটনা ঘটেছে। গুরুদাসপুর থানার অদূরে ডাক অফিসের একটি কক্ষে বুধবার রাতে ওই চুরির ঘটনা ঘটে। এতে বৃহস্পতিবার দুপুরে পোস্ট মাস্টার গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। দুর্বৃত্তরা দুই লাখ ৫৮ হাজার টাকা চুরি করেছে।

পোস্ট অফিস সূত্রে জানা গেছে, সঞ্চয়পত্রের লেনদেন, খামারিদের পোস্ট অফিসভিত্তিক লেদেনের জন্য ডাক বিভাগের সঙ্গে ব্যাংক এশিয়া চুক্তিবদ্ধ। এসব সেবাদানের জন্য গুরুদাসপুর পোস্ট অফিসের একটি কক্ষে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংক এশিয়ার কার্যক্রম চলছিল। পোস্ট অফিসের উদ্যোক্তা সেলিম রেজা ওই শাখার এজেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ব্যাংক এশিয়ার গুরুদাসপুর পোস্ট অফিস শাখার সিএসও (কাস্টমার সার্ভিস অফিসার) কেয়া খাতুন বলেন, এজেন্ট সেলিম রেজা প্রশিক্ষণের জন্য বেশ কয়েক দিন ধরে রাজশাহীতে অবস্থান করছেন। ব্যাংককিং শাখার কাজ তিনিই দেখা শোনা করছিলেন। বুধবার লেনদেন কম হওয়ায় অফিস কক্ষের ড্রয়ারে ২ লাখ ৫৮ হাজার টাকা রেখে যান তিনি। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে অফিস কক্ষের তালা খুলে দেখেন মেঝেতে ভাঙা কাচ পড়ে আছে। টাকার ড্রয়ারটিও খোলা। এ সময় তিনি দেখেন ড্রয়ারে রাখা টাকা ও সিসি ক্যামেরার হার্ডডিস্ক নেই।

পোস্ট অফিসের নৈশপ্রহরী আলাউদ্দিন জানান, রাত ২টা পর্যন্ত জেগে থাকার পর তিনি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাতে কোনো শব্দ পাননি তিনি। পোস্ট অফিসের ভারপ্রাপ্ত পোস্ট মাস্টার মো. মিজানুর রহমান বলেন, ডাক ভবনের একটি কক্ষে ব্যাংক এশিয়ার কার্যক্রম চলছিল। চুরির বিষয়ে তিনি গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। চোরচক্র ধরতে পুলিশ কাজ করছে বলে জানান গুরুদাসপুর থানার ওসি মো. আব্দুল মতিন।

গুরুদাসপুর পোস্ট অফিসে আড়াই লাখ টাকা চুরি

 গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি 
২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গুরুদাসপুর উপজেলা পোস্ট অফিসের ভেন্টিলেটর ভেঙে টাকা চুরির ঘটনা ঘটেছে। গুরুদাসপুর থানার অদূরে ডাক অফিসের একটি কক্ষে বুধবার রাতে ওই চুরির ঘটনা ঘটে। এতে বৃহস্পতিবার দুপুরে পোস্ট মাস্টার গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। দুর্বৃত্তরা দুই লাখ ৫৮ হাজার টাকা চুরি করেছে।

পোস্ট অফিস সূত্রে জানা গেছে, সঞ্চয়পত্রের লেনদেন, খামারিদের পোস্ট অফিসভিত্তিক লেদেনের জন্য ডাক বিভাগের সঙ্গে ব্যাংক এশিয়া চুক্তিবদ্ধ। এসব সেবাদানের জন্য গুরুদাসপুর পোস্ট অফিসের একটি কক্ষে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংক এশিয়ার কার্যক্রম চলছিল। পোস্ট অফিসের উদ্যোক্তা সেলিম রেজা ওই শাখার এজেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ব্যাংক এশিয়ার গুরুদাসপুর পোস্ট অফিস শাখার সিএসও (কাস্টমার সার্ভিস অফিসার) কেয়া খাতুন বলেন, এজেন্ট সেলিম রেজা প্রশিক্ষণের জন্য বেশ কয়েক দিন ধরে রাজশাহীতে অবস্থান করছেন। ব্যাংককিং শাখার কাজ তিনিই দেখা শোনা করছিলেন। বুধবার লেনদেন কম হওয়ায় অফিস কক্ষের ড্রয়ারে ২ লাখ ৫৮ হাজার টাকা রেখে যান তিনি। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে অফিস কক্ষের তালা খুলে দেখেন মেঝেতে ভাঙা কাচ পড়ে আছে। টাকার ড্রয়ারটিও খোলা। এ সময় তিনি দেখেন ড্রয়ারে রাখা টাকা ও সিসি ক্যামেরার হার্ডডিস্ক নেই।

পোস্ট অফিসের নৈশপ্রহরী আলাউদ্দিন জানান, রাত ২টা পর্যন্ত জেগে থাকার পর তিনি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাতে কোনো শব্দ পাননি তিনি। পোস্ট অফিসের ভারপ্রাপ্ত পোস্ট মাস্টার মো. মিজানুর রহমান বলেন, ডাক ভবনের একটি কক্ষে ব্যাংক এশিয়ার কার্যক্রম চলছিল। চুরির বিষয়ে তিনি গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। চোরচক্র ধরতে পুলিশ কাজ করছে বলে জানান গুরুদাসপুর থানার ওসি মো. আব্দুল মতিন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন