সুজানগরে স্কুলছাত্রীকে হাতুড়িপেটা
jugantor
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান
সুজানগরে স্কুলছাত্রীকে হাতুড়িপেটা

  সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি  

২০ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনার সুজানগর উপজেলায় প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় এক স্কুলছাত্রীকে প্রকাশ্যে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করেছে ফাহাদ মোল্লা নামের এক বখাটে। ওই ছাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। বুধবার বিকালে রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ঘটনার প্রতিবাদ ও অভিযুক্ত ফাহাদকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা। ছাত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বুধবার রাতেই বখাটে ফাহাদ মোল্লাকে আসামি করে সুজানগর থানায় মামলা করেন। অভিযুক্ত ফাহাদ সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের ফকিৎপুর গ্রামের ফারুক মোল্লার ছেলে। সে সাতবাড়িয়া (বালক) উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রী জানায়, বখাটে ফাহাদ প্রায়ই তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিত। রাজি না হওয়ায় ফাহাদ তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। বুধবার বিকালে স্কুল শেষে বান্ধবীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিল সে। পথিমধ্যে ফাহাদ তার গতিরোধ করে আবারও প্রেমের প্রস্তাব দেয়। এতে সাড়া না দেওয়ায় ফাহাদ তাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। তার চিৎকারে বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে ফাহাদ পালিয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফারজানা আক্তার বলেন, আঘাত গুরুতর হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শিক্ষার্থীরা সুজানগর-সাতবাড়িয়া সড়কে মানববন্ধন করে। এ কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন-বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি, প্রধান শিক্ষক ও অন্যরা। এ সময় পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দেন।

সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাননান বলেন, অভিযুক্ত বখাটে ফাহাদ মোল্লাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান

সুজানগরে স্কুলছাত্রীকে হাতুড়িপেটা

 সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি 
২০ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনার সুজানগর উপজেলায় প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় এক স্কুলছাত্রীকে প্রকাশ্যে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করেছে ফাহাদ মোল্লা নামের এক বখাটে। ওই ছাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। বুধবার বিকালে রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ঘটনার প্রতিবাদ ও অভিযুক্ত ফাহাদকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা। ছাত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বুধবার রাতেই বখাটে ফাহাদ মোল্লাকে আসামি করে সুজানগর থানায় মামলা করেন। অভিযুক্ত ফাহাদ সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের ফকিৎপুর গ্রামের ফারুক মোল্লার ছেলে। সে সাতবাড়িয়া (বালক) উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রী জানায়, বখাটে ফাহাদ প্রায়ই তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিত। রাজি না হওয়ায় ফাহাদ তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। বুধবার বিকালে স্কুল শেষে বান্ধবীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিল সে। পথিমধ্যে ফাহাদ তার গতিরোধ করে আবারও প্রেমের প্রস্তাব দেয়। এতে সাড়া না দেওয়ায় ফাহাদ তাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। তার চিৎকারে বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে ফাহাদ পালিয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফারজানা আক্তার বলেন, আঘাত গুরুতর হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শিক্ষার্থীরা সুজানগর-সাতবাড়িয়া সড়কে মানববন্ধন করে। এ কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন-বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি, প্রধান শিক্ষক ও অন্যরা। এ সময় পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দেন।

সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাননান বলেন, অভিযুক্ত বখাটে ফাহাদ মোল্লাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন