রাজশাহীতে নদীভাঙন ঠেকানোর দাবিতে মানববন্ধন
jugantor
রাজশাহীতে নদীভাঙন ঠেকানোর দাবিতে মানববন্ধন

  রাজশাহী ব্যুরো  

২২ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় পদ্মা নদীর ভাঙন থেকে প্রায় চার কিলোমিটার এলাকা রক্ষায় প্রকল্প গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। দেওপাড়া ইউনিয়নের আলীপুর নিমতলা থেকে পূর্বে খারিজাগাতি মোল্লাপাড়া পর্যন্ত পদ্মা নদীর পাড়ে চার কিলোমিটার এলাকাজুড়ে শনিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

কর্মসূচিতে ওই এলাকার আশপাশের স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং গ্রামবাসী অংশ নেন। পদ্মার ভাঙন থেকে ওই এলাকা রক্ষায় গঠিত নাগরিক কমিটির ব্যানারে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা জানান, প্রায় ২০ বছর পর গত ভরা মৌসুমে আলীপুর, নিমতলা, খারিজাগাতি ও মোল্লাপাড়া এলাকায় পদ্মার তীরে ভাঙন দেখা দেয়। গত বছরই অনেকটা জায়গা পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এবার ভরা মৌসুমের আগে ব্যবস্থা না নিলে বিস্তীর্ণ এলাকা বিলীন হয়ে যাবে।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান। বক্তব্য দেন সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. কাবাজুদ্দীন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ মোহাম্মদ, ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুবুর রহমান, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের জেলার সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় প্রমুখ।

রাজশাহীতে নদীভাঙন ঠেকানোর দাবিতে মানববন্ধন

 রাজশাহী ব্যুরো 
২২ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় পদ্মা নদীর ভাঙন থেকে প্রায় চার কিলোমিটার এলাকা রক্ষায় প্রকল্প গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। দেওপাড়া ইউনিয়নের আলীপুর নিমতলা থেকে পূর্বে খারিজাগাতি মোল্লাপাড়া পর্যন্ত পদ্মা নদীর পাড়ে চার কিলোমিটার এলাকাজুড়ে শনিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

কর্মসূচিতে ওই এলাকার আশপাশের স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং গ্রামবাসী অংশ নেন। পদ্মার ভাঙন থেকে ওই এলাকা রক্ষায় গঠিত নাগরিক কমিটির ব্যানারে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা জানান, প্রায় ২০ বছর পর গত ভরা মৌসুমে আলীপুর, নিমতলা, খারিজাগাতি ও মোল্লাপাড়া এলাকায় পদ্মার তীরে ভাঙন দেখা দেয়। গত বছরই অনেকটা জায়গা পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এবার ভরা মৌসুমের আগে ব্যবস্থা না নিলে বিস্তীর্ণ এলাকা বিলীন হয়ে যাবে।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান। বক্তব্য দেন সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. কাবাজুদ্দীন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ মোহাম্মদ, ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুবুর রহমান, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের জেলার সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন