কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ ৫ জনকে হাইকোর্টে তলব
jugantor
আদালত অবমাননা
কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ ৫ জনকে হাইকোর্টে তলব

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১২ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হাইকোর্টের নির্দেশনার পরও ১৩৩ কোটি টাকার বেশি মূল্যের সম্পত্তি মাত্র ১৫ কোটি টাকায় নিলামে তোলায় কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ পাঁচজনকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। ২১ আগস্টের মধ্যে তাদেরকে সশরীরে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই সম্পত্তির মালিক শফিকুল ইসলামকে দখল বুঝিয়ে দিতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিচারপতি আবু তাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমান ও বিচারপতি একেএম রবিউল হুসাইনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

যে পাঁচজনকে তলব করা হয়েছে তারা হলেন-ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আরএফ হোসাইন, কুষ্টিয়ার ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, এসপি মো. খায়রুল আলম, সদর থানার ওসি মো. সাব্বিরুল আলম ও নিলামে সম্পত্তি নেওয়া ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদ। ২১ আগস্ট তাদের আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে ২৪ মার্চ ওই সম্পত্তি (প্রতিষ্ঠান) নিলামে তোলা হয়। ওই নিলামের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক শফিকুল ইসলাম। হাইকোর্ট ডিভিশনের যৌথ বেঞ্চ নিলামের সব কার্যক্রম স্থগিত করেন।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ওয়ায়েস আল হারুনী বলেন, ২ আগস্ট ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলামের মালিকানাধীন মেসার্স বিশ্বাস ট্রেডার্স, ভিআইপি রাইস মিল ও ভিআইপি ফ্লাওয়ার মিল নিলাম তিন মাসের জন্য স্থগিত করেন। একইসঙ্গে এক মাসের মধ্যে ২০ কোটি টাকা ব্র্যাক ব্যাংককে দিতে বলা হয়। এ ছাড়া আরও ৬ কোটি টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়।

কিন্তু আদালতের এ আদেশ লঙ্ঘন করে ৫ আগস্ট ভোরে পুলিশের সহযোগিতায় ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলামের ১২৩ কোটি টাকার সম্পত্তি নিলামে বিক্রি করে কুষ্টিয়ার বিশিষ্ট চাল ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদের মালিকানাধীন রশিদ এন্টারপ্রাইজের নামে।

আদালত অবমাননা

কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ ৫ জনকে হাইকোর্টে তলব

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১২ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হাইকোর্টের নির্দেশনার পরও ১৩৩ কোটি টাকার বেশি মূল্যের সম্পত্তি মাত্র ১৫ কোটি টাকায় নিলামে তোলায় কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ পাঁচজনকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। ২১ আগস্টের মধ্যে তাদেরকে সশরীরে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই সম্পত্তির মালিক শফিকুল ইসলামকে দখল বুঝিয়ে দিতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিচারপতি আবু তাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমান ও বিচারপতি একেএম রবিউল হুসাইনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

যে পাঁচজনকে তলব করা হয়েছে তারা হলেন-ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আরএফ হোসাইন, কুষ্টিয়ার ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, এসপি মো. খায়রুল আলম, সদর থানার ওসি মো. সাব্বিরুল আলম ও নিলামে সম্পত্তি নেওয়া ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদ। ২১ আগস্ট তাদের আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে ২৪ মার্চ ওই সম্পত্তি (প্রতিষ্ঠান) নিলামে তোলা হয়। ওই নিলামের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক শফিকুল ইসলাম। হাইকোর্ট ডিভিশনের যৌথ বেঞ্চ নিলামের সব কার্যক্রম স্থগিত করেন।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ওয়ায়েস আল হারুনী বলেন, ২ আগস্ট ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলামের মালিকানাধীন মেসার্স বিশ্বাস ট্রেডার্স, ভিআইপি রাইস মিল ও ভিআইপি ফ্লাওয়ার মিল নিলাম তিন মাসের জন্য স্থগিত করেন। একইসঙ্গে এক মাসের মধ্যে ২০ কোটি টাকা ব্র্যাক ব্যাংককে দিতে বলা হয়। এ ছাড়া আরও ৬ কোটি টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়।

কিন্তু আদালতের এ আদেশ লঙ্ঘন করে ৫ আগস্ট ভোরে পুলিশের সহযোগিতায় ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলামের ১২৩ কোটি টাকার সম্পত্তি নিলামে বিক্রি করে কুষ্টিয়ার বিশিষ্ট চাল ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদের মালিকানাধীন রশিদ এন্টারপ্রাইজের নামে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন