হাটহাজারীতে নবজাতকের মৃত্যু
jugantor
চিকিৎসকের অবহেলা
হাটহাজারীতে নবজাতকের মৃত্যু

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৮ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ও সেবিকার অবহেলার কারণে নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু মোরশেদ রায়হান ও নাহিদা আকতার দম্পতির পরিবার এ অভিযোগ করেন। তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ তদন্তসাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছে।

প্রসব বেদনা নিয়ে মঙ্গলবার রাতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান নাহিদা আকতার। জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে দ্বিতীয় তলায় যেতে বলেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ও সেবিকারা ঘুমাচ্ছিলেন। ঘুম থেকে জাগানো হলে তারা বলেন, ‘নরমাল ডেলিভারি’ হবে, অপেক্ষা করুন। রাত ৩টা নাগাদ চিকিৎসক ও সেবিকা না আসায় রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটে। ভোর সাড়ে ৬টায় সেবিকারা আবারও এসে জানান, নরমাল ডেলিভারি হবে। এরপর কাগজে সই নেওয়া হয়। একপর্যায়ে জানানো হয়, নবজাতক গর্ভে থাকা অবস্থায় মারা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সোহানিয়া আক্তার বিল্লাহ বলেন, কর্তব্যরত চিকিৎসক ও সেবিকার অবহেলার কারণে ওই নবজাতকের মৃত্যু হয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলেও তিনি জানান।

চিকিৎসকের অবহেলা

হাটহাজারীতে নবজাতকের মৃত্যু

 হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৮ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ও সেবিকার অবহেলার কারণে নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু মোরশেদ রায়হান ও নাহিদা আকতার দম্পতির পরিবার এ অভিযোগ করেন। তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ তদন্তসাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছে।

প্রসব বেদনা নিয়ে মঙ্গলবার রাতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান নাহিদা আকতার। জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে দ্বিতীয় তলায় যেতে বলেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ও সেবিকারা ঘুমাচ্ছিলেন। ঘুম থেকে জাগানো হলে তারা বলেন, ‘নরমাল ডেলিভারি’ হবে, অপেক্ষা করুন। রাত ৩টা নাগাদ চিকিৎসক ও সেবিকা না আসায় রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটে। ভোর সাড়ে ৬টায় সেবিকারা আবারও এসে জানান, নরমাল ডেলিভারি হবে। এরপর কাগজে সই নেওয়া হয়। একপর্যায়ে জানানো হয়, নবজাতক গর্ভে থাকা অবস্থায় মারা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সোহানিয়া আক্তার বিল্লাহ বলেন, কর্তব্যরত চিকিৎসক ও সেবিকার অবহেলার কারণে ওই নবজাতকের মৃত্যু হয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলেও তিনি জানান।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন