ঈদে রেমিটেন্সে ব্যাপক প্রবৃদ্ধি

প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে ঘিরে রেমিটেন্সে ব্যাপক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। বিশেষ করে মে মাসে সর্বোচ্চ ১৪৮ কোটি ২৮ লাখ ডলারের রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

যা একক মাস হিসেবে গত ৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। এছাড়া এবারের ঈদে শীর্ষ কয়েকটি ব্যাংকের রেমিটেন্স প্রবৃদ্ধি ৮ থেকে ২৮ শতাংশ পর্যন্ত হয়েছে। এটি জুন শেষে নতুন রেকর্ড গড়ার প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তাদের মতে, শ্রমিক রফতানি ও টাকার বিপরীতে ডলারের দাম বৃদ্ধি এবং আসন্ন ঈদের ভূমিকার কারণে রেমিটেন্স বেড়েছে।

ইসলামী ব্যাংক সূত্র জানায়, এবারের রোজার ঈদে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিটেন্স এসেছে ২৮০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ২৬০ মিলিয়ন ডলার।

এতে রেমিটেন্স প্রবৃদ্ধি হয়েছে প্রায় ৮ শতাংশ। জানতে চাইলে ইসলামী ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট (এসভিপি) ও রেমিটেন্স বিষয়ক কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী যুগান্তরকে বলেন, রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়াতে ১৫ দিন ক্যাম্পেইন করা হয়েছে।

এছাড়া বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠাতে নানা প্রচার-প্রচারণা চালানো হয়েছে। সব মিলিয়ে রেমিটেন্স বেড়েছে বলে জানান তিনি।

জনতা ব্যাংক সূত্র জানায়, এবারের রোজার ঈদে জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে ৫৫ দশমিক শূন্য ১ মিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স এসেছে। যা গত রোজার ঈদে ছিল ৪৪ দশমিক ৩৭ মিলিয়ন ডলার। এতে রেমিটেন্সের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২৮ শতাংশ।

এ প্রসঙ্গে ব্যাংকটির রেমিটেন্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) তাজুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, এবারের রোজার ঈদে জনতা ব্যাংকে রেমিটেন্স এসেছে ৪৫৯ কোটি ৮৮ লাখ টাকা।

গত বছরের একই সময়ে ছিল ৩৫৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। এতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০২ কোটি টাকা। তিনি বলেন, গ্রাহক সেবার মান বাড়ানোর কারণে রেমিটেন্স প্রবাহ বেড়েছে। রেমিটারদের ঈদ শুভেচ্ছা, ঈদ উপহারসহ নানা সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয়েছে।

অগ্রণী ব্যাংক সূত্র জানায়, এবারের ঈদে উল্লেখযোগ্য রেমিটেন্স এসেছে রাষ্ট্রায়ত্ত অগ্রণী ব্যাংকের মাধ্যমে। গত ১ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত ব্যাংকটির মাধ্যমে রেমিটেন্স এসেছে ৮৮ দশমিক ৭৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ৭০ দশমিক ৪৫ মিলিয়ন ডলার। সে হিসাবে ঈদে রেমিটেন্সের প্রবৃদ্ধি প্রায় ২৬ শতাংশ।

৭৮টি রেমিটেন্স হাউসের মাধ্যমে এসব রেমিটেন্স এসেছে। অগ্রণী ব্যাংকের রেমিটেন্স বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত এজিএম শ্যামল মহত্তম যুগান্তরকে বলেন, এবারের ঈদে রেমিটেন্স প্রবাহ বেড়েছে ১৮ দশমিক ২৮ মিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে শুধু ২৬ রমজানেই এসেছে ১৮ মিলিয়ন ডলার। ওই দিন ৪২ হাজার গ্রাহককে রেমিটেন্স সেবা প্রদান করা হয়েছে। রূপালী ব্যাংক সূত্র জানায়, এবারের রোজার ঈদে রূপালী ব্যাংকের মাধ্যমে ২১ দশমিক ৬২ মিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স এসেছে।

যা গত রোজার ঈদে ছিল ১৬ দশমিক ৪৭ মিলিয়ন ডলার। এতে রেমিটেন্স বেড়েছে ৫ দশমিক ১৫ মিলিয়ন ডলার। পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আবদুল হালিম চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, গত রোজার তুলনায় এবারের রোজায় ২০ শতাংশ রেমিটেন্স বেশি এসেছে।