কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিক্ষোভ আজ

প্রজ্ঞাপন প্রকাশ ও নেতাদের মুক্তি দাবি

প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  ঢাবি প্রতিনিধি

৫ দফার আলোকে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপনের দাবিতে ফের বিক্ষোভে নামছেন আন্দোলনকারীরা। একই সঙ্গে কোটা সংস্কার আন্দোলন করতে গিয়ে আটক কেন্দ্রীয় নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি, নিরাপদ ক্যাম্পাসের স্বার্থে হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিচার দাবি করেছেন তারা।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ দেশের প্রত্যেকটি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে কালো ব্যাজ ধারণ ও বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ কর্মসূচি পালিত হবে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান বৈষম্যমূলক কোটার যৌক্তিক সংস্কারের দাবিতে অহিংস ও শান্তিপূর্ণভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে।

সারা দেশে দুর্বার ছাত্র আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী ১১ এপ্রিল জাতীয় সংসদে কোটা বাতিল ঘোষণা করেন। কিন্তু সে কথা রাখা হয়নি। সরকারের আশ্বাসে ৩ বার আন্দোলন স্থগিত করে দীর্ঘ ৫ মাসেও আমাদের দাবি বাস্তবায়ন করা হয়নি। বরং বিভিন্ন সময়ে আন্দোলনকারীদের হুমকি দেয়া হচ্ছে, হামলা করা হয়েছে।

নুর বলেন, আমরা কখনোই কোটা বাতিল চাইনি। আমরা ৫ দফার আলোকে কোটার যৌক্তিক সংস্কার চেয়েছি। যেটা দেশের ছাত্র-শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিক, সুশীল সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে।

কিন্তু তারপরও ছাত্রসমাজের যৌক্তিক এ দাবি না মেনে সন্ত্রাসীদের দিয়ে বারবার ছাত্র-শিক্ষকদের ওপর হামলা করা হয়েছে এবং ভয়-ভীতি দেখিয়ে আন্দোলন বন্ধ করার হীন অপচেষ্টা হিসেবে আন্দোলনের নেতাদের মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের ৫ দফা হল- কোটা ব্যবস্থার সংস্কার করে ৫৬ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশে আনা; কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে খালি থাকা পদগুলোতে মেধাবীদের নিয়োগ; কোনো ধরনের বিশেষ পরীক্ষা না নেয়া; সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন বয়সসীমা এবং চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একবারের বেশি ব্যবহার না করা।

রাশেদসহ ৬ আসামির জামিন শুনানি ২৭ আগস্ট : কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবন ভাংচুর ও সংঘর্ষ এবং প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তির মামলায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদ খানসহ ছয় আসামি জামিন আবেদন করেছেন।

সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েসের আদালতে এ জামিন আবেদন করা হয়। বিচারক আসামিদের জামিন শুনানির জন্য ২৭ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন। জামিন আবেদন করা অপর আসামিরা হলেন- তরিকুল ইসলাম, ফারুক হোসেন, জসিম উদ্দিন, মশিউর রহমান ও মো. সোহেল।