সাঁতারে বিশ্ব রেকর্ড

১৮৫ কিলোমিটার নদীপথ অতিক্রম

  মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সাঁতার

১৮৫ কিলোমিটার নদীপথ সাঁতরিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন নেত্রকোনা মদন উপজেলার জাহাঙ্গিরপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্য (৬৭)।

২০১৩ সালে আমেরিকার সাঁতারু ডায়ানা নাঈদের কিউবা টু ফ্লোরিডা এই ১৭৭ কিলোমিটার সাঁতারের বিশ্বরেকর্ড ভাঙতে ৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টায় শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার ভোগাই ব্রিজ থেকে সাঁতার শুরু করেন ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র।

ভোগাই, কংস নদী হয়ে টানা ঊনষাট ঘণ্টা সাঁতার কাটার পর বুধবার রাত ৮টা ১৫ মিনিটের দিকে নেত্রকোনার মদনের মগড়া নদীর দেওয়ান বাজার ঘাটে পৌঁছান তিনি। তিনি শারীরিকভাবে অনেকটা দুর্বল হয়ে পড়েছেন। তাকে স্থানীয় একটি হেলথ কেয়ার সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

মদন নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক মোদাচ্ছের হোসেন সফিক জানান, ক্ষিতীন্দ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তিনি ১৯৭২ সালে মদনের জাহাঙ্গিরপুর উন্নয়ন কেন্দ্রের পুকুরে টানা ১৫ ঘণ্টা সাঁতার কেটে আলোচিত হন।

ওই বছর সিলেটের রামকৃষ্ণ পুকুরে ৩৪ ঘণ্টা, সুনামগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয় পুকুরে ৪৩ ঘণ্টা, ১৯৭৩ সালে ছাতক উচ্চ বিদ্যালয় পুকুরে ৬০ ঘণ্টা, সিলেটের এমসি কলেজ পুকুরে ৮২ ঘণ্টা সাঁতার কাটেন। আর ১৯৭৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল পুকুরে ৯৩ ঘণ্টা সাঁতার প্রদর্শন করে জাতীয় রেকর্ড গড়েন।

১৯৭৬ সালে জগন্নাথ হল পুকুরে ১০৮ ঘণ্টা সাঁতার কেটে নিজের রেকর্ড ভাঙেন তিনি। দেশের বাইরে ভারতের মুর্শিদাবাদে ভাগিরথী নদীতে ১২ ঘণ্টা ২৮ মিনিটে জঙ্গিপুর থেকে গোদাবাড়ি ঘাট পর্যন্ত ৭৪ কিলোমিটার সাঁতার কেটে দেশের সম্মান বয়ে আনেন।

দীর্ঘ চার বছরের প্রস্তুতিতে তিনি বিশ্ব রেকর্ড গড়ার অদম্য মানসিকতা নিয়ে গত ৩ সেপ্টেম্বর সকালে সাঁতার কাটা শুরু করেন। মদন নাগরিক কমিটি ও নালিতাবাড়ী পৌরসভা যৌথভাবে এর আয়োজন করে।

মদন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভপতি আবদুল কুদ্দুছ বলেন, ‘গুগল ম্যাপ ডেটায় দূরত্ব নির্ণয় করে এবং ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্রের বয়স বিবেচনা করে এই সাঁতার বিশ্ব রেকর্ড হিসেবে গণ্য হবে। গিনেস বুকে রেকর্ড করতে সার্বক্ষণিক সাঁতারের ভিডিও ধারণ করা হয়েছে। তিনি কিছুটা দুর্বল হলেও, সফলভাবেই মদন পৌঁছেছেন।’ মদন উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. ওয়ালীউল হাসান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র ১৮৫ কিলোমিটার সাঁতার কেটে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। তার নাম গিনেস বুকে উঠবে বলে আশা করছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter