প্রাইভেট পড়া শেষে শুরু হয় ক্লাস

বাউফলে ঝুঁকিপূর্ণ মদনপুরা দরগাবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়

  শিবলী সাদেক, বাউফল ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে আর অনিয়মের মধ্য দিয়ে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। সরেজমিন বাউফল উপজেলার মদনপুরা দরগাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় এসব অনিয়মের চিত্র। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ৩২ মিনিট, বিদ্যালয়ের সামনে দেখা মেলে ১০ থেকে ১২ জন শিক্ষার্থীর। সকাল ৯টায় পাঠদান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও এই শিক্ষার্থীরা অনেক আগেই চলে এসেছে এমনটাই ভেবেছিলাম। তবে শিক্ষার্থীরা জানায়, তারা প্রাইভেট পড়তে এসেছে কিন্তু স্যার না থাকায় তারা বাইরে ঘুরছে। কোন স্যারের কাছে পড় জানতে চাইলে শিক্ষার্থীরা জানায় তারা ওই বিদ্যালয়েরই সহকারী শিক্ষক শহিদুল ইসলামের কাছে পড়তে এসেছে। বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ক্লাসে সকাল ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত প্রাইভেট পড়ান তিনি। উপস্থিত আরও কয়েক শিক্ষার্থী জানান, তারা কামাল একাডেমির মালিক কামাল স্যারের কাছে প্রাইভেট পড়ে। কামাল একাডেমি কোথায় জানতে চাইলে শিক্ষার্থীরা জানায়, এই বিদ্যালয়েরই ৫ম শ্রেণীর শ্রেণী কক্ষে সকাল ৬টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত চলে কামাল একাডেমির ক্লাস। ৯টা ৩১ মিনিটে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করেন ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফেরদৌসি খান লিজা। সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটের সময় বিদ্যালয়ের লাইব্রেরি কক্ষে প্রবেশ করেন রাহিমা বেগম ও রুনা আক্তার এবং নাজমুন নাহার নাসিমা বেগম ও নতুন যোগদান করতে আসা শিক্ষক লিপি আক্তার। বিদ্যালয়ে ঢুকে সাংবাদিকের উপস্থিতি বুঝতে পেরে শিক্ষার্থীদের মাঠ থেকে ডেকে শ্রেণীকক্ষে নিয়ে যান শিক্ষকরা। সকাল তখন ১০টা, তখনো বিদ্যালয়ের সব ক্লাসে শিক্ষক উপস্থিত হতে পারেননি। নিয়মানুযায়ী সকাল ৯টায় অ্যাসেম্বলি ক্লাস জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন এবং শপথবাক্য পাঠ করানোর কথা থাকলেও সকাল ১০টার মধ্যেও বিদ্যালয়ের সব ক্লাস তখনো শুরু হয়নি। বিদ্যালয় ভবনটি ঘুরে দেখা যায় ভবনটির দেয়াল এবং ছাদের অধিকাংশ স্থানে নোনা ধরেছে। এর ফলে অনেক স্থানেই ছাদ এবং দেয়ালের পলেস্তারা খসে পড়েছে। পলেস্তারা খসে ভেতরে থাকা মরিচা ধরা লোহার রড বেরিয়ে পড়েছে। শিক্ষকরা জানায়, বর্ষার সময় এই ভবনের ছাদ চুইয়ে অনবরত পানি পড়ে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বলেন, বিদ্যালয় ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকায় নাম ওঠানোর জন্য তিনি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে বলেছেন। বিদ্যালয়ে কি প্রাইভেট কিংবা কোনো একাডেমির ক্লাস করার অনুমতি আছে কিনা জানতে চাইলে ওই শিক্ষক বলেন, অনুমতি নেই কিন্তু স্থানীয় অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের প্রাইভেট পড়াতে চান তাই তাদের অনুরোধে বিদ্যালয়ে প্রাইভেট পড়াতে দিচ্ছেন তিনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×