ক্রোয়েশিয়ার টাইব্রেকার-ভাগ্য সত্যিই ভালো

  কায়সার হামিদ ০৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

টাইব্রেকারে জয়ের পর ক্রোয়েশিয়ার উল্লাস।
টাইব্রেকারে জয়ের পর ক্রোয়েশিয়ার উল্লাস। ছবি: ইন্টারনেট

যোগ্যতর দল হিসেবেই সেমিফাইনালে গেল ইংল্যান্ড। এদিকে অভিশাপ থেকে মুক্তি পেল ইংল্যান্ড। এতদিন বিশ্বকাপের মূলপর্ব ও বাছাইপর্বে সুইডিশদের বিপক্ষে অধরা ছিল ইংল্যান্ডের জয়। এবার সেই জুজুর ভয় কাটল তাদের।

দীর্ঘ ২৮ বছর পর বিশ্বকাপের শেষ চারে জায়গা করে নিল ইংলিশরা। ম্যাচে সবদিক দিয়ে এগিয়েছিল ইংল্যান্ড। তাদের পায়ে বল ছিল ৫৮ ভাগ। লক্ষ্যে ১২টি শট নিয়েছে তারা। কর্নার পেয়েছে ছয়টি। এতেই স্পষ্ট যে, ম্যাচে ফেভারিট হিসেবেই নেমেছিলেন গ্যারেথ সাউথগেটের শিষ্যরা। গ্রুপপর্বেও দ্বিতীয় রাউন্ডে ইংলিশদের অন্যতম ত্রাতা হ্যারি কেন।

ছয় গোল করে সর্বাধিক গোলদাতাদের শীর্ষে থাকা এই ফরোয়ার্ড কারিশমা দেখাতে পারলেন না সুইডিশদের বিপক্ষে। এতে এতটুকু ম্লান হয়নি ব্রিটিশদের গৌরব। হ্যারি কেন পারেননি, তাতে কী। তরুণ হ্যারি ম্যাগুয়ার ও ডেলে আলি জয় এনে দিয়েছেন দলকে।

দু’জনের গতি এবং উপস্থিত বুদ্ধি দেখে আমি অবাক। ক্ষিপ্রগতিতে গোল দুটি আদায় করে নিলেন তারা। প্রায় আড়াই যুগ পর ইংল্যান্ডকে তুলে দিলেন সেমিফাইনালে। সুইডিশদের অসাধারণ কিছু আক্রমণ রুখে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন ইংলিশ গোলকিপার জর্ডান পিকফোর্ড। তবে ডিফেন্ডার ম্যাগুয়ার এবং উইঙ্গার আলি গোল পেলেও হ্যারি কেনের নিষ্প্রভতা দৃষ্টিকটু লেগেছে।

আগের পরিসংখ্যান কোনো কাজেই আসেনি সুইডিশদের। ম্যাচে কতটা আক্রমণাত্মক ছিল হেরে যাওয়া সুইডেন, তা না দেখলে বোঝার উপায় নেই। তাদের আক্রমণ রুখে দিয়েছেন ইংল্যান্ডের

গোলপ্রহরী পিকফোর্ড। গোল শোধের জন্য মরিয়া ছিল সুইডেন। শট তারাও নিয়েছিল। মার্কসবার্গের হেড এবং মার্কসের নিশ্চিত গোল দুটি পিকফোর্ড রক্ষা না করলে হয়তো ম্যাচ সমতায় থাকত নির্ধারিত সময়। একযুগ পর বিশ্বকাপে ফিরেছিল সুইডেন, কিন্তু ফিরে আসাটা সেমিফাইনাল কিংবা ফাইনালের রঙে রাঙাতে পারল না।

অবশেষে থেমে গেল রুশ স্বপ্নাযাত্রা। কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত যে বিপ্লব চলছিল, তা থামিয়ে দিল ক্রোয়েশিয়া। তবে ভাগ্যের সহায়তায়। টাইব্রেকারে। সোচিতে নাটকীয়তায় ভরা ছিল ম্যাচ। গোল, পাল্টা গোল, সমতা, সব শেষে টাইব্রেকারে নিষ্পত্তি। টাইব্রেকার-ভাগ্য সত্যিই ভালো ক্রোটদের।

দ্বিতীয় রাউন্ডে ডেনমার্ককে আর কোয়ার্টার ফাইনালে তারা হারিয়ে দিল স্বাগিতকদের। তাদের খেলা দেখে দাভর সুকারের কথা মনে পড়ে গেল। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে সুকার সেমিফাইনালে নিয়ে গিয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়াকে। ২০ বছর পর আবার দেশকে শেষ চারে তুললেন লুকা মডরিচ, রাকিতিচরা। অসম্ভব সুন্দর এক ম্যাচ দেখেছেন দর্শকরা।

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter