সাক্ষাৎকারে দাভর সুকের

‘ক্রোয়েশিয়া যোদ্ধা জাতি এজন্যই তারা ফাইনালে’

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৫ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দাভর সুকের
দাভর সুকের। ফাইল ছবি

বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়া নামটা শুনলেই সবার আগে চোখে ভাসে দাভর সুকেরের মুখ। ১৯৯৮ সালে নিজেদের অভিষেক বিশ্বকাপে তার সোনালি ঝলকেই সবাইকে চমকে দিয়ে তৃতীয় হয়েছিল ক্রোয়েশিয়া।

সাত ম্যাচে ছয় গোল করে সেবার গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন সুকের। দুই দশক আগের সেই কীর্তি ছাপিয়ে এবার প্রথমবারের মতো ক্রোটদের বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠার পেছনেও অবদান রয়েছে সুকেরের।

পাঁচ বছর ধরে ক্রোয়েশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি তিনি। আজ ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া ফাইনালের আগে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে অনেক প্রসঙ্গই ছুঁয়ে গেলেন ক্রোট ফুটবল কিংবদন্তি।

প্রশ্ন : ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপের ফাইনালে দেখে কি বিস্মিত হয়েছেন?

সুকের : না, একদমই না। আমি ফুটবলের মানুষ। জানি যে, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল শারীরিকভাবে ভালো অবস্থায় থাকা। ফেভারিটরা সাধারণত এই দিকটায় তেমন মনোযোগ দেয় না। কিন্তু ভালো প্রস্তুতির কোনো বিকল্প নেই।

অনেক ভেবেচিন্তেই আমরা সেন্ট পিটার্সবার্গে বেস ক্যাম্প করেছি। এখানকার আবহাওয়া মস্কোর মতো গরম নয়। ভালো প্রস্তুতির সঙ্গে দরকার লড়াকু মানসিকতা। ফাইনালের পথটা আমাদের জন্য সহজ ছিল না।

টানা তিন ম্যাচে অতিরিক্ত সময়ে খেলার ধকল সামলাতে হয়েছে। লুকা মডরিচকে আমি বলেছি, কতটা সে দৌড়েছে। সিমে ভারসালিয়েকো কার্যত অর্ধেক হাঁটু নিয়েই খেলেছে। সাজঘরে তাকে অভিনন্দন জানিয়ে

বলেছি, সে ও তার সতীর্থরা সত্যিকারের যোদ্ধা। ক্রোয়েশিয়া যোদ্ধা জাতি। এজন্যই আমরা জিতি। এজন্যই আমরা ফাইনালে।

প্রশ্ন : এত প্রতিভা কীভাবে উঠে আসছে

ক্রোয়েশিয়া থেকে?

সুকের : যুব প্রকল্পে সব সময়ই বিনিয়োগ করে ক্রোয়েশিয়ান ফুটবল। বর্তমান খেলোয়াড়দের ৯০ ভাগই উঠে এসেছে বয়সভিত্তিক দল থেকে। শুরু থেকে তাদের পরিচর্যা করায় অনেক

বিশ্বমানের খেলোয়াড় পেয়েছি আমরা। ক্রোয়েশিয়া ছোট্ট দেশ। সীমিত সম্পদের সঠিক ব্যবহারের

তাই কোনো বিকল্প নেই।

প্রশ্ন : ক্রোয়েশিয়ার এই স্বপ্নযাত্রায় আপনার

ভূমিকা কতটা?

সুকের : আমি সবাইকে বিশ্বাস করাতে পেরেছি যে, তাদের জন্য আমি সব করতে পারি। কোচকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছি। কোচের কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে কখনও প্রশ্ন তুলিনি। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

প্রশ্ন : বলকান যুদ্ধের সেই দিনগুলোতে কীভাবে

খেলা চালিয়ে গেছেন?

সুকের : বর্তমান দলটির সঙ্গে এক্ষেত্রে দারুণ মিল ছিল আমাদের। দুটি প্রজন্মই হৃদয় দিয়ে খেলে এবং দেশের জার্সির জন্য লড়াই করে। সবচেয়ে সুন্দর জিনিসটা হল বিশ্বকাপে খেলা। বুকে হাত রেখে ক্রোয়েশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করা এবং দেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটানো।

প্রশ্ন : লুকা মডরিচ কি এবার ব্যালন ডি’অর জিতবেন?

সুকের : অন্য সবার চেয়ে ভালো খেলছে সে। রিয়াল মাদ্রিদের হয়েও সে তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছে। সে দলের জন্য সবকিছুই করছে এবং উদাহরণ হয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছে। ব্যালন ডি’অর এবার মডরিচকেই

দেয়া উচিত। শেষ ম্যাচটা অবশ্য বাকি। ফাইনালের ফলের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করবে। কিন্তু আমি সবাইকে লুকাকে ভোট দিতে বলব।

প্রশ্ন : সেরা দুটি দল কি ফাইনালে উঠেছে?

সুকের : ফুটবল সব সময়ই ন্যায়বিচার করে। ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া প্রমাণ করেছে সেরা দুটি

দলই ফাইনালে উঠেছে। তারা উরুগুয়ে ও আর্জেন্টিনার মতো দলকে হারিয়েছে। তারাই

সবচেয়ে ভালো খেলেছে।

প্রশ্ন : ফাইনালে ফেভারিট কে?

সুকের : ফেভারিট তকমার কোনো মূল্য নেই। ইংল্যান্ডের কিছু মানুষ ক্রোয়েশিয়াকে নিয়ে অনেক বাজে কথা বলেছিল। সেই কথা তাদের গিলতে হয়েছে। আমি বলব, দু’দলেরই সম্ভাবনা ফিফটি-ফিফটি। ওয়েবসাইট।

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter