চট্টগ্রামে আলোচিত যত ঘটনা

পাহাড় ধসে যেমন প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, তেমনই বর্ষা মৌসুম নগরবাসীর কেটেছে দুঃসহ জলাবদ্ধতার কষ্টে

  নাসির উদ্দিন রকি, চট্টগ্রাম ব্যুরো ০১ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

২০১৭ সাল চট্টগ্রামের জন্য ছিল ঘটনাবহুল একটি বছর। প্রাকৃতিক দুর্যোগের বিরুদ্ধে প্রায় বছরজুড়েই লড়াই করতে হয়েছে চট্টগ্রামবাসীকে। এ বছর পাহাড় ধসে যেমন প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, তেমনই বর্ষা মৌসুম নগরবাসীর কেটেছে দুঃসহ জলাবদ্ধতার কষ্টে। বছরের শেষদিকে চট্টলাবীর হিসেবে পরিচিত আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামবাসীকে কাঁদিয়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। এ মৃত্যু শোক কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই তার কুলখানিতে আয়োজিত মেজবানে পদদলিত হয়ে ১০ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় নেমে আসে আরেক শোক। দুর্যোগ দুর্বিপাকের মধ্যেও এ বছর কিছু প্রাপ্তিও ছিল। চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় উড়াল সেতুর উদ্বোধন হয়েছে এ বছরেই। এছাড়া নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে নেয়া হয়েছে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প।

মহিউদ্দিন চৌধুরীর চিরবিদায় : বছরের শেষদিকে এসে চট্টগ্রামবাসীকে কাঁদিয়ে গেলেন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। ১৪ ডিসেম্বর রাতে তিনি মারা যান। মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাবেক তিনবারের নির্বাচিত মেয়র ছিলেন।

পদদলনে ১০ জনের মৃত্যু : আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানির মেজবানে পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হন আরও অনেকে। ১৮ ডিসেম্বর দুপুরে আসকার দীঘিরপাড়ে রীমা কনভেনশন সেন্টারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

চার নারী ধর্ষণ : ১২ ডিসেম্বর রাতে কর্ণফুলী উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়নের এক বাড়িতে ডাকাতির সময় প্রবাসী তিন ভাইয়ের স্ত্রী ও তাদের এক বোনকে ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। ধর্ষিতাদের মধ্যে একজন অন্তঃসত্ত্বা নারীও ছিলেন। ধর্ষণের শিকার নারীরা ঘটনার পরদিন মামলা করতে কর্ণফুলী থানায় গেলে পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করে। পরে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর হস্তক্ষেপে পাঁচ দিন পর মামলা নেয় পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে দু’জন আদালতে দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

জলাবদ্ধতা : চট্টগ্রাম মহানগরে বিরাজমান জলাবদ্ধতা সমস্যা গত বছর আরও বহুগুণে বেড়ে যায়। বর্ষার শুরুতে ১৫ জুলাই এক রাতের অবিরাম বর্ষণে কোথাও হাঁটু, কোথাও কোমর, আবার কোথাও গলা সমান পানিতে ডুবে যায় চট্টগ্রাম মহানগরী। একনাগাড়ে চার দিন থাকে এ জলাবদ্ধতা।

গৃহকর আন্দোলন : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আয়ের প্রধান খাত হচ্ছে গৃহকর। শতভাগ দূরের কথা, গত ২২ অর্থবছরে কখনই গৃহকর আদায়ে লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও পূরণ করতে পারেনি কর্পোরেশন। এর মধ্যেই প্রচলিত পদ্ধতি (স্থাপনার আয়তনের ভিত্তিতে বর্গফুটপ্রতি) বাদ দিয়ে ‘ভাড়ার ভিত্তিতে’ গৃহকর আদায় করার প্রক্রিয়া শুরু করে সিটি কর্পোরেশন। নতুন পদ্ধতিতে গৃহকর নির্ধারণের প্রক্রিয়া ঠেকানোর জন্য করদাতা সুরক্ষা পরিষদের ব্যানারে সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে মাঠে নামে বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটেদের সংগঠন। হরতালের হুমকিও দেয় তারা। তবে ভাড়ার ভিত্তিতে গৃহকর নির্ধারণে অনড় থাকেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এ লক্ষ্যে পুনর্মূল্যায়ন কার্যক্রমও সম্পন্ন হয়। তবে গৃহকর নিয়ে নাগরিকদের গড়ে তোলা আন্দোলনে সফলতা আসে। গত ২৬ নভেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগ দেশের সব সিটি কর্পোরেশনের গৃহকর পুনর্মূল্যায়ন সংক্রান্ত কার্যক্রম স্থগিত করে।

রাঙ্গুনিয়ায় পাহাড় ধস ও স্রোতে ২৮ জনের মৃত্যু : বছরের মাঝামাঝি সময়ে প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধস ও পানির স্রোতে ভেসে গিয়ে রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়। চলতি বছরের ১৩ জুন উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের মইন্যারটেক ও পাহাড়তলী ঘোনায় এবং রাজানগর ইউনিয়নের জঙ্গল বগাবিলে পাহাড় ধসে মারা যায় ২২ জন। একই দিন হোসনাবাদ এলাকায় পানির স্রোতে ভেসে গিয়ে আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়।

ত্রিপুরা পল্লীতে ৯ শিশুর মৃত্যু : বছরের জুলাই মাসে সীতাকুণ্ডের ত্রিপুরা পল্লীতে হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় ৯ জন শিশু। এতে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেয় আরও শতাধিক শিশু।

সি-বোট উল্টে প্রাণ যায় ১৮ জনের : সন্দ্বীপ চ্যানেলের গুপ্তছড়া ঘাটে সি-বোট উল্টে ১৮ যাত্রীর প্রাণহানির ঘটনা ঘটে ২০১৭ সালের ২ এপ্রিল। এ ঘটনায় তখনকার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. মমিনুর রশিদকে প্রধান করে ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে জেলা প্রশাসন।

সবচেয়ে বড় উড়াল সড়ক উদ্বোধন : চট্টগ্রাম নগরের সবচেয়ে বড় আখতারুজ্জামান চৌধুরী উড়াল সড়কের মূল অংশ (লালখানবাজার থেকে মুরাদপুর) যান চলাচলের জন্য পুরোপুরি উন্মুক্ত করে দেয়া হয় ১ সেপ্টেম্বর। ৬৯৬ কোটি ৩৪ লাখ ৪৪ হাজার টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। উড়াল সড়কের মোট দৈর্ঘ্য ৬ দশমিক ৮ কিলোমিটার।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter