শ্রীপুরের পাঁচটি রেলওয়ে স্টেশনের জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
jugantor
শ্রীপুরের পাঁচটি রেলওয়ে স্টেশনের জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুরে রেলওয়ের জায়গায় গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে স্টেট বিভাগের ভূ-সম্পত্তি অধিবিভাগ। রোববারর সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনা করেন রেলওয়ের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ও ডেপুটি কমিশনার অহিদুন্নবী।

ডেপুটি কমিশনার অহিদুন্নবী জানান, গাজীপুরের শ্রীপুর, কাওরাইদ, সাতখামাইর, রাজেন্দ্রপুর ও ইজ্জতপুর রেলওয়ে স্টেশনের জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ সময় ছোট-বড় মিলিয়ে এক হাজারেরও বেশি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। বাংলাদেশ রেলওয়ের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্রমান্বয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে। পরবর্তীতে ১০০ দিন পর পুনরায় অভিযান চলবে।

তিনি আরও জানান, অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য প্রত্যেক রেলস্টেশন এলাকায় মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল। অবৈধ দখলদাররা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের স্থাপনা সরিয়ে না নেয়ায় কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে অভিযান পরিচালনা করে তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে। উচ্ছেদকালে বাংলদেশ রেলওয়ে পুলিশ ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অভিযানে সহযোগিতা করেন।

শ্রীপুরের পাঁচটি রেলওয়ে স্টেশনের জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

 শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুরে রেলওয়ের জায়গায় গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে স্টেট বিভাগের ভূ-সম্পত্তি অধিবিভাগ। রোববারর সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনা করেন রেলওয়ের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ও ডেপুটি কমিশনার অহিদুন্নবী।

ডেপুটি কমিশনার অহিদুন্নবী জানান, গাজীপুরের শ্রীপুর, কাওরাইদ, সাতখামাইর, রাজেন্দ্রপুর ও ইজ্জতপুর রেলওয়ে স্টেশনের জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ সময় ছোট-বড় মিলিয়ে এক হাজারেরও বেশি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। বাংলাদেশ রেলওয়ের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্রমান্বয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে। পরবর্তীতে ১০০ দিন পর পুনরায় অভিযান চলবে।

তিনি আরও জানান, অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য প্রত্যেক রেলস্টেশন এলাকায় মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল। অবৈধ দখলদাররা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের স্থাপনা সরিয়ে না নেয়ায় কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে অভিযান পরিচালনা করে তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে। উচ্ছেদকালে বাংলদেশ রেলওয়ে পুলিশ ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অভিযানে সহযোগিতা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন