হাইকোর্ট মাজার

সিসি ক্যামেরার ফুটেজে চুরির দৃশ্য

এক মাসেও ধরা পড়েনি দৃর্বৃত্তরা

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হাইকোর্ট মাজার

প্রায় এক মাস আগে গভীর রাতে হাইকোর্ট মাজার চত্বর মসজিদের সিন্দুক ভেঙে চুরির ঘটনার কিনারা করতে পারেনি পুলিশ। মাজারের ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরায় চুরির পুরো দৃশ্য ধরা পড়েছে।

সেখানে দেখা গেছে, মুখে কালো কাপড় বেঁধে এক চোর সিন্দুক ভেঙে চুরি করছে। চুরির পর গেটের তালা ভাঙে চোর। সাদা শার্ট ও কালো প্যান্ট পরিহিত একজন ওই চোরকে সহায়তা করছিল। ঘটনার এক মাস পরও দুই চোরকে শনাক্ত করা যায়নি।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার এসআই মো. মনছুর আহম্মেদ যুগান্তরকে বলেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দুজনকে দেখা গেছে। কিন্তু তাদের পরিচয় জানা যায়নি। এ বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে। এরই মধ্যে অনলাইনে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ প্রকাশ করে চোর ধরতে সবার সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

গত ২২ ডিসেম্বর মসজিদের ভেতরে রাখা ১১টি সিন্দুকের তালা ভেঙে দানের সব টাকা নিয়ে যায় চোরেরা। এছাড়া বৈদেশিক মুদ্রা ও স্বর্ণ চুরি হয়। সিন্দুকগুলো ১৫-২০ দিন পরপর খোলা হয়। এর মধ্যে একটি সিন্দুক আছে, যাতে টাকা ছাড়াও স্বর্ণালঙ্কার রাখা হয়।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মাজারের পেছন দিক থেকে গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে চোর। পরে সিন্দুকগুলোর তালা ভেঙে সব অর্থ হাতিয়ে নিয়ে গেটের তালা ভেঙে পালিয়ে যায়। এ প্রক্রিয়ায় মুখোশধারী চোরকে এক ব্যক্তি সহায়তা করে।

মঙ্গলবার রাতে চুরির ঘটনায় ভিডিও প্রকাশ করেছে ডিএমপির মিডিয়া ও পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ভিডিও চিত্রে প্রদর্শিত ব্যক্তি সম্পর্কে কারও জানা থাকলে তিনি যেন ডিএমপিতে যোগাযোগ করেন। এজন্য ০১৭১৩-৩৭৩১২৫ (অফিসার ইনচার্জ শাহবাগ থানা), ০১৭২১৪৭১৪৬১ (মামলার তদন্ত কর্মকর্তা) দুটি মোবাইল নম্বর দেয়া হয়েছে।

পুলিশের ভাষ্য, চুরির প্রক্রিয়ার সঙ্গে সংঘবদ্ধ একটি চক্র জড়িত থাকতে পারে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দুজনকে দেখা গেলেও এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত থাকতে পারে। এ বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×