শিক্ষা বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ পদে বড় ধরনের রদবদল

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৫ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শিক্ষা বিভাগে বড় ধরনের রদবদল হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষার কাজের কেন্দ্রবিন্দু মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি), বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড এবং প্রকল্পের ২৬টি গুরুত্বপূর্ণ পদে রোববার রাতে আকস্মিক বদলির আদেশ হয়। শিক্ষা ক্যাডারে পরিচিত একটি গ্রুপের কর্মকর্তারা এ পদগুলো পেয়েছেন। এ নিয়োগ দিতে গিয়ে রেকর্ডসংখ্যক ১৮ জনকে একযোগে ওএসডি করা হয়েছে। নতুন এ বদলি এবং ওএসডি করার খবর রাতে শিক্ষা ক্যাডারে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনাকে অনেকেই শিক্ষা ক্যাডারে ‘সুনামি’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

যেসব কর্মকর্তা ওএসডি হয়েছেন তাদের বেশিরভাগের বিরুদ্ধে নানা অপকর্মে জড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। কেউ কেউ ১০ বছরের বেশি একই কর্মস্থলসহ লাভজনক পদে চাকরি করছিলেন। পদায়ন পাওয়াদের মধ্যেও এ ধরনের সুবিধাজনক পদে এক দশকের বেশি চাকরি করা কর্মকর্তাও আছেন। তবে ইতিবাচক দিক হচ্ছে, প্রশাসনিক পদে দীর্ঘদিন কলেজে চাকরি করা বেশকিছু শিক্ষক আছেন। বদলি এবং ওএসডির দুটি আদেশ রাতে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বদলিকৃত নতুন ২৬টি পদের মধ্যে চারটিই মাউশির পরিচালক পদ। শিক্ষা ক্যাডারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদ হিসেবে পরিচিত মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) পদে পদায়ন পেয়েছেন ঢাকা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক শাহেদুল খবির চৌধুরী। নতুন এ অধ্যাপক সর্বশেষ ঢাকা বোর্ডের সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। মাউশির পরিচালক (প্রশিক্ষণ) হয়েছেন উপ-পরিচালক অধ্যাপক প্রবীর কুমার ভট্টাচার্য। উপ-পরিচালক (এম অ্যান্ড ই) হয়েছেন নরসিংদীর সরকারি কলেজের সংযুক্ত অধ্যাপক মো. আমীর হোসেন। পরিচালক (ফিনান্স অ্যান্ড প্রকিউরমেন্ট) হয়েছেন মুন্সীগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম খান।

এভাবে মাউশির বিভিন্ন আঞ্চলিক পরিচালক, উপ-পরিচালক, সহকারী পরিচালক এবং বিভিন্ন প্রকল্প পরিচালক পদে পরিবর্তন আনা হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে মাউশির একজন সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে নানা মহল থেকে অভিযোগ আসছিল। তাকে আগের চেয়ে আরও গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করা হয়েছে। মাউশিতে পদায়ন পাওয়া কর্মকর্তাদের বেশিরভাগই বিভিন্ন কলেজ থেকে পদায়ন পেয়েছেন। ইতঃপূর্বে মাদ্রাসা বোর্ডের পরিদর্শকের দায়িত্ব পালন করা অধ্যাপক আবুল বাসার ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক হয়েছেন। অন্যদিকে ঢাকা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে একই বের্ডের সচিব করা হয়েছে। মাদ্রাসা বোর্ডের উপ-রেজিস্ট্রার কামাল উদ্দিনকে একই বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক করা হয়েছে। এ বোর্ডের রেজিস্ট্রার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকার দুয়ারিপাড়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সিদ্দিকুর রহমান।

ওএসডি হওয়া ১৮ কর্মকর্তার সবাই মাউশি, বিভিন্ন প্রকল্প এবং বোর্ডে দীর্ঘদিন কর্মরত ছিলেন। এদের কেউ ভিন্নমতাদর্শের আবার কারও বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতিতে জড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। ওএসডি হওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে আছেন মাউশির চার পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবদুল মালেক, অধ্যাপক ড. সেলিম মিয়া, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোজাম্মেল হোসেন চৌধুরী, অধ্যাপক মো. ইউসুফ, উপ-পরিচালক সফিকুল ইসলাম সিদ্দিকী, বিসিএস ২৪ ফোরামের সভাপতি জাকির হোসেন, সবুজ আলম, সাইফুল ইসলাম, অধ্যাপক শাহ আলম, মাদ্রাসা বোর্ডের রেজিস্ট্রার মুজিবুর রহমান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এসএম মোর্শেদ বিপুল প্রমুখ। বদলি ও ওএসডি আদেশপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের আজকের মধ্যে কর্মস্থল থেকে অবমুক্ত হতে হবে। ২৭ মার্চের মধ্যে পদায়নকৃত কর্মস্থলে যোগ দিতে হবে। নইলে ২৭ মার্চ তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে অবমুক্ত বলে গণ্য হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×